Health

উল্টো প্রতিক্রিয়া, অক্সফোর্ডের টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল স্থগিত

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা প্রতিষেধক টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে ধাক্কা। টিকা পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী এক জনের দেহে বিরূপ প্রতিক্রিয়া।

নয়াদিল্লি : বিশ্বে অনেকগুলি করোনা প্রতিষেধক টিকার ট্রায়াল চলছে। কিন্তু সেই দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি টিকা কোভিশিল্ড। যা এখন তার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। অনেকেই আশা করে আছেন এই টিকা বছরের শেষেই হয়তো পাওয়া যাবে।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এর আগে ইবোলার প্রতিষেধক আবিষ্কার করে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল। অনেকে তাই ভরসাও করছেন অক্সফোর্ডের তৈরি টিকার ওপর। কিন্তু ছন্দে এগিয়ে চলা এই টিকার ট্রায়াল বড় ধাক্কা খেল। ফলে সব জায়গায় এই টিকার ট্রায়াল স্থগিত করল উৎপাদনের সত্ত্ব হাতে থাকা ওষুধ প্রস্ততকারক সংস্থা অ্যাসট্রাজেনেকা।

জানা গেছে ব্রিটেনে এই ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারী এক ব্যক্তির দেহে তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল টিকা দেওয়ার পর তাঁর দেহে বিরুদ্ধ প্রতিক্রিয়া শুরু হয়ে যায়। তারপরই আর সময় নষ্ট না করে স্থগিত করে দেওয়া হয় ট্রায়াল। কেন এমনটা হল তা যেমন খতিয়ে দেখা হচ্ছে, তার সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে এমন এক পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় জন্য ঠিক কী কারণ দায়ী।

যদিও ট্রায়ালে অনেক অংশগ্রহণকারী রয়েছেন। তাঁদের কারও ওপরই বিরূপ প্রতিক্রিয়া পড়েনি। ওই ব্যক্তির ক্ষেত্রে পড়ার কারণ কী এবং টিকার সুরক্ষার দিকটা আরও ভাল করে খতিয়ে দেখতেই আপাতত স্থগিত করা হয়েছে ট্রায়াল বলে জানা গেছে।

ব্রিটেন ছাড়াও আমেরিকার অনেক জায়গায় তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চলছিল। তাও বন্ধ রাখা হয়েছে। সংস্থার তরফে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখে তবেই ফের ট্রায়াল শুরুর অনুমতি দেওয়া হবে। সম্পূর্ণ সুরক্ষা নিশ্চিত না হলে টিকা বাজারে আনা যাবেনা বলেই মনে করেছেন বিশেষজ্ঞেরা। এদিকে যেটুকু জানা গেছে তাতে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার শিকার ওই অংশগ্রহণকারী সেরে উঠবেন দ্রুত। সেটা নিয়ে চিন্তা নেই।

বিশেষজ্ঞেরা মনে করেন যে কোনও টিকার তৃতীয় বা শেষ পর্যায়ের ট্রায়াল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই ট্রায়াল উৎরে গেলে টিকা নিয়ে নিশ্চিত হতে পারা যায়। যে কারণে রাশিয়া তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শেষ না করেই টিকাকে মান্যতা দেওয়ায় সমালোচনার ঝড় ওঠে। একই রাস্তায় হেঁটেছে চিনও। আমেরিকাও সেই পথেই হাঁটতে চলেছে বলে শোনা যাচ্ছে। অক্সফোর্ড টিকার তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের মাঝেই এই বিপত্তি কিন্তু সকলের জন্যই চিন্তার কারণ হল। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button