Festive Mood

মঙ্গলের সন্ধেয় ইউটিউবে ই পয়লা বৈশাখে মাতবেন মুম্বইবাসী

নতুন বছর ১৪২৭। নতুন বছরকে প্রতি বছরের মত আনন্দ উৎসবে স্বাগত জানাতে না পেরে বাঙালির মন খারাপ। মন খারাপ প্রবাসী বাঙালিদেরও।

বাঙালির ১২ মাসে তেরো পার্বণ। সেই তালিকায় অবশ্যই পয়লা বৈশাখ অন্যতম। বাংলা নববর্ষের সূচনা মানেই বাঙালির কাছে ধুতি, পাঞ্জাবী, হালখাতা, গণেশ-লক্ষ্মী, মন্দিরে মন্দিরে ভিড়, বর্ষবরণের বৈঠক, কব্জি ডুবিয়ে রসনা তৃপ্তি, ক্যালেন্ডার আর লাড্ডু।

বর্ষবরণের আরও এক আকর্ষণ বিকেল নামলে বিভিন্ন দোকানে দোকানে মানুষের ঢল। ক্যালেন্ডার নিয়ে, কোল্ড ড্রিংকসে চুমুক দিয়ে মিষ্টির প্যাকেট হাতে অন্য দোকানে পাড়ি দেওয়া। আর যা বাঙালির চিরন্তন তা হল বৈঠকি আড্ডা। কালক্রমে এই বৈঠকি আড্ডা এখন যেমন বেঁচে আছে বিভিন্ন পাড়ায়, সংগঠনে, বন্ধুদের গেট টুগেদারে, তেমনই তা নতুন রূপে জায়গা করে নিয়েছে টিভির পর্দায়।

এখন আবার ইন্টারনেটের জামানা। এ সময়ে অনলাইনে বর্ষবরণের অনুষ্ঠানও জনপ্রিয়তার পারদ চড়াচ্ছে। কিন্তু এবার করোনার জেরে মানুষের এই মিলন উৎসবে একত্র হয়ে আনন্দে মেতে ওঠা লাটে উঠেছে। সুনসান বঙ্গেই পালিত হবে বাঙালির বর্ষবরণ। আসবে নতুন বছর ১৪২৭। নতুন বছরকে প্রতি বছরের মত আনন্দ উৎসবে স্বাগত জানাতে না পেরে বাঙালির মন খারাপ। মন খারাপ প্রবাসী বাঙালিদেরও।

মুম্বইবাসী নাম দিয়ে বাণিজ্যনগরীর বাসিন্দা একদল মনে প্রাণে বাঙালি অবশ্য শিকড়ের টানে এবারও পালন করছেন বর্ষবরণ। তবে করোনার কারণে কোনও জায়গায় সমবেত হয়ে নয়। ইউটিউবে তাঁরা ২ ঘণ্টার একটি জমজমাট অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন। নাম দিয়েছেন ‘বর্ষবরণ বৈঠক ই’।

আড্ডার যে বৈঠকি ব্যাপার রয়েছে, সেই বৈঠকিকে ‘বৈঠক ই’ নামের মধ্যে দিয়ে পরিবেশনের সৃজনশীলতা মন ছুঁয়ে যায়। মঙ্গলবার রাত ৮টায় ইউটিউবে এই অনুষ্ঠান দেখা যাবে। দেখা যাবে টানা ২ ঘণ্টা। ২ ঘণ্টার এই টানটান অনুষ্ঠানে থাকবেন বাংলার ২০ জন উদীয়মান শিল্পী।

কেউ গান গাইবেন। কেউ নাচ পরিবেশন করবেন। কেউ সুর বাঁধবেন তাঁর পছন্দের বাদ্যযন্ত্রে। কেউ আবার নখের উপর বাঙালির বর্ষবরণের সাজ নিয়ে হাজির হবেন একদম অন্য এক প্রতিভার বিচ্ছুরণ নিয়ে। থাকবে আরও নানা আকর্ষণ। সব মিলিয়ে লকডাউনে থাকা বাঙালির বছরের প্রথম দিনের সন্ধেটা মাতিয়ে দিতে তাঁদের চেষ্টার অন্ত রাখেননি মুম্বইবাসী এই মনেপ্রাণে বাঙালিরা।

কীভাবে হল এই অনুষ্ঠান এই লকডাউনের মধ্যে? উদ্যোক্তারা জানাচ্ছেন, তাঁদের কাছে নিজেদের ভিডিও পাঠিয়েছিলেন এই ২০ জন শিল্পী। সেসব ভিডিও এডিট করে সুন্দর করে সাজিয়ে তুলেছেন তাঁরা। যা একটা ২ ঘণ্টার অনুষ্ঠানের রূপ নিয়েছে। এই অনুষ্ঠানের টিজার তাঁরা ইতিমধ্যেই ইউটিউবে চালাচ্ছেন। পয়লা বৈশাখের লকডাউনে থাকা সন্ধেয় এই অভিনব উদ্যোগ বাঙালির মন ভরাবে বলেই আশাবাদী উদ্যোক্তারা।

Tags
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close