World

২১ জনের প্রাণ কাড়ল ‘পোলার ভোর্টেক্স’

মেরু অঞ্চলের প্রবল ঠান্ডা বাতাস যা শীতকালে উত্তর মেরু ছেড়ে আরও বৃহত্তর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। আর তা হলেই হুহু করে ঠান্ডা ঠুকতে শুরু করে।

এমন অস্বাভাবিক ঠান্ডা দেখেনি মার্কিন মুলুক। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য-পশ্চিম অঞ্চল বরফে কার্যত জমে গেছে। মাইনাস তো বটেই। বহু এলাকায় মাইনাস ৩০-৪০ ও নেমে গেছে। খোদ শিকাগোতেই পারদ নেমেছিল মাইনাস ৩১ ডিগ্রিতে। এমন আজব ঠান্ডার কারণ হিসাবে দায়ী করা হয়েছে পোলার ভোর্টেক্স-কে। কী এই পোলার ভোর্টেক্স?

মেরু অঞ্চলের প্রবল ঠান্ডা বাতাস যা শীতকালে উত্তর মেরু ছেড়ে আরও বৃহত্তর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। আর তা হলেই আমেরিকায় হুহু করে ঠান্ডা ঠুকতে শুরু করে। তার জেরে এমন এক অস্বাভাবিক ঠান্ডার কোপে পড়ে একটা বড় অংশ।

Polar Vortex
পোলার ভোর্টেক্স-এর প্রভাবে জমে বরফ শিকাগোর মিশিগান লেক, ছবি – আইএএনএস

আমেরিকায় ইতিমধ্যেই এই ‘পোলার ভোর্টেক্স’-এর কোপে পড়ে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইলিনয়, ইন্ডিয়ানা, লোয়া, কানসাস, মিশিগান, মিসৌরি, নেব্রাস্কা, উত্তর ও দক্ষিণ ডাকোটা, ওহিও এবং উইসকনসিন আপাতত সাদা বরফে ঢেকে গেছে। জনজীবন কার্যত স্তব্ধ। কেউ বাড়ি থেকে বার হওয়ার অবস্থায় নেই। যান চলাচল সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত।

বরফের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে হাড় কাঁপানো ঠান্ডা। যা গরম পোশাকের মধ্যে দিয়ে ঢুকে পড়ছে শরীরে। বিঁধছে সূচের মত। ফলে অধিকাংশ স্কুল, ব্যবসা বন্ধ। বন্ধ রেস্তোরাঁগুলিও। শহরের পর শহর ঘরের মধ্যে গৃহবন্দি। অধিকাংশ উড়ান বাতিল হচ্ছে এসব এলাকায়। দৃশ্যমানতা কার্যত তলানিতে। কবে ঠিক এই অবস্থা থেকে মুক্তি সে সম্বন্ধে এখনও কোনও দিশা দিতে পারছে না হাওয়া অফিস। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা


Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button