Wednesday , July 24 2019
Bengali Festivals
পলাশ, ছবি - সৌজন্যে - উইকিপিডিয়া

প্রেমের দিনেই বসন্ত এসে গেছে

গাছে গাছে ইতিমধ্যেই শিমূল, পলাশে রঙ ধরতে শুরু করেছে। রঙ ধরতে শুরু করেছে মানুষের মনেও। বসন্ত মানেই তো রঙের আবাহন। শীত শেষে বসন্তের আগমন মনে অন্য এক দোলা দিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার পয়লা ফাল্গুন। বসন্তের শুরু। আকাশ বাতাসও বলছে বসন্তে এসে গেছে। তাও আবার এমন একটা দিনে যেদিন প্রেমের দিন। ভালবাসার দিন। প্রেমের দিনে বসন্তের আগমন। এ তো রাজযোটক। ভ্যালেন্টাইনস ডে কে সামনে রেখে শহর থেকে গ্রাম সর্বত্রই তারুণ্যের জোয়ার। প্রেমের জোয়ার।

Bengali Festivals
পলাশ, ছবি – সৌজন্যে – উইকিপিডিয়া

সকাল থেকেই ফুলের দোকানে ভিড় জমিয়েছেন সারা বছরেও ফুলের দোকানে না আসা কিশোর-কিশোরী থেকে তরুণ-তরুণী। অন্য কোনও ফুল নয়। মনের মানুষের জন্য গোলাপ চাই। বাজার চাহিদার কথা মাথায় রেখে এদিন সব দোকানেই বিভিন্ন রঙের গোলাপের সম্ভার। দামও যেমন খুশি হাঁকছেন ফুল বিক্রেতারা। কারণ দাম যাই হোক এই বিশেষ দিনটায় অন্তত একটা গোলাপ ভালবাসার মানুষের হাতে তুলে দেওয়ার আনন্দটাই আলাদা। আর সেই অনুভূতিটা কিছু অর্থের জন্য হাতছাড়া করতে রাজি নয় তরুণ প্রজন্ম।

Bengali Festivals
পলাশ, ছবি – সৌজন্যে – উইকিপিডিয়া

বৃহস্পতিবার গোলাপ যেমন অনেক জায়গায় বিকিয়েছে ৫০, ৬০ টাকাতেও। তেমনই বিভিন্ন উপহারের দোকানে ব্যাপক ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ভিড় জমছিল কয়েকদিন ধরেই। ভ্যালেন্টাইনস ডে-র দিনেও ভালবাসার মানুষকে নিয়ে অনেকে হাজির হয়েছেন দোকানে। পছন্দের গিফট কিনে হাতে তুলে দিয়েছেন একে অপরের।

Valentines Day
ভ্যালেন্টাইনস ডে উপলক্ষে কলকাতার বাজারে গোলাপ, ছবি – আইএএনএস

একই রকম ভিড় শহরের সোনার দোকানগুলিতে। ছোট্ট এক টুকরো সোনা বা হিরের অলংকার কিনে দেওয়ার মত রেস্ত যাঁদের রয়েছে তাঁরা মনের মানুষকে উপহার দিয়েছেন সোনার অলঙ্কার। একইভাবে বিভিন্ন রেস্তোরাঁতেও ভিড় উপচে পড়া। ভিড় বিভিন্ন পার্ক থেকে মাল্টিপ্লেক্স বা শপিং মলে।

Valentines Day
ভ্যালেন্টাইনস ডে উপলক্ষে কলকাতার বাজারে গোলাপ, ছবি – আইএএনএস

বাতাসে বসন্ত আর মন জুড়ে প্রেম। এই নিয়ে আর পাঁচটা দিনের বাইরে গিয়েও ভালবাসা এদিন জিতে গেল প্রতিবারের মত। কত স্বপ্ন নিয়ে কতই না সম্পর্ক তৈরি হল এদিন। কত সম্পর্ক আরও একবার ঝালিয়ে নিল তাদের ভালবাসার টান। জীবনের কঠিন লড়াইয়ের মধ্যে একে অপরের সঙ্গে একটা দিনকে সামনে রেখে কিছু না ভোলা মুহুর্ত কাটানো চিরদিনের জন্য স্মৃতি হয়ে রইল যুগল মনে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *