State

সকাল থেকে বিক্ষোভের মুখে ভারতী ঘোষ, গুলি, ইটবৃষ্টি, রক্তাক্ত কেশপুর

ভোট শুরুর পর থেকেই রবিবার উত্তেজনার কেন্দ্রে রইল ঘাটাল লোকসভা আসনের অন্তর্গত কেশপুর। কেশপুরের কাছে একটি গ্রামে বিজেপি এজেন্টকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছেনা। এমন খবর পেয়ে এদিন সেখানে হাজির হন ভারতী ঘোষ। প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষ ঘাটালে বিজেপি প্রার্থী। তিনি দেহরক্ষীদের সঙ্গে করে সেখানে হাজির হয়ে বিজেপি এজেন্টকে বুথে বসাতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। আর তখনই শুরু হয় অশান্তি।

অনেক মহিলা ভারতী ঘোষকে ঘিরে ধরেন। সাফ জানিয়ে দেন বিজেপি এজেন্টকে তাঁরা বুথে ঢুকতে দেবেননা। ভারতী ঘোষ সেখানে গিয়ে অশান্তি পাকাচ্ছেন বলেও দাবি করেন উত্তেজিত মহিলারা। শুরু হয় ধস্তাধস্তি। কেন্দ্রীয়বাহিনী ঠেলে মহিলাদের সরানোর চেষ্টা করে। এদিকে ধস্তাধস্তির মধ্যে একবার হোঁচট খেয়ে পড়েও যান ভারতী ঘোষ। তাঁকে কাঁদতেও দেখা যায়। এরপর সেখান থেকে বেরিয়ে যান ভারতী ঘোষ।

এই ঘটনার পরই কিছুটা দূরে ভারতী ঘোষের গাড়ির ওপর হামলা হয়। গাড়ির কাচ ভেঙে ফেলা হয়। অভিযোগ এই সময় ইটের ঘায়ে মাথা ফেটে যায় ভারতী ঘোষের এক দেহরক্ষীর। এমনও অভিযোগ যে ভারতী ঘোষের সুরক্ষাকর্মীরা জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে শূন্যে গুলি চালান। যদিও তৃণমূলের অভিযোগ ওই গুলিতে তাদের এক কর্মী আহত হন। তাঁর হাতে গুলি লাগে। দ্রুত তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এই ঘটনাকে সামনে রেখে তৃণমূলের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ায়।

এই ঘটনার পর বেলা ১১টা নাগাদ যখন ভারতী ঘোষের গাড়ি কেশপুর শহরের মধ্যে ঢোকে তখন একদল তৃণমূল কর্মী সমর্থক রাস্তা আটকে দাঁড়িয়ে তাঁর গাড়ি আটকে দেন। বিক্ষোভকারী ও ভারতী ঘোষের গাড়ির মধ্যে দাঁড়িয়ে পড়ে বিশাল সংখ্যক পুলিশ। পুলিশ ভারতী ঘোষের গাড়ির ছাড়পত্র সংক্রান্ত কাগজ দেখাতে বললে তিনি তা সে সময়ে দেখাতে পারেননি বলে অভিযোগ। পুলিশ গাড়ি সিজ করার উদ্যোগ নেয়। অন্যদিকে ভারতী ঘোষ গাড়ির সামনে থেকে বেরিয়ে আসেন।

অন্যদিকে তখন তৃণমূল কর্মীরা ক্রমশ উত্তেজিত হয়ে ইটবৃষ্টি শুরু করে। থান ইট আর কাচের বোতলে রাস্তা ভরে যায়। পুলিশ পাল্টা তাদের তেড়ে যায়। ভিড় ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জও করা হয়। তৈরি ছিল কাঁদানে গ্যাসের শেলও। গলিতে ঢুকে ভিড় হঠানো শুরু করে পুলিশ। এদিকে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট বৃষ্টি চলতে থাকে। এদিকে ভারতী ঘোষের গাড়ি সিজ করে কেশপুর থানার পুলিশ।

রবিবার সকালেই ভারতী ঘোষ একটি বুথে ঢুকে মোবাইল ক্যামেরায় ছবি তুলছিলেন। যা নির্বাচনী আইন বিরুদ্ধ। ফলে নির্বাচন কমিশনে সে সম্বন্ধে অভিযোগ দায়ের হয়। অন্যদিকে ভারতী ঘোষকে এদিন একটি বুথে ঢুকতেই দিচ্ছিলেন না মহিলারা। তাঁদের অভিযোগ ছিল এখানে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন বিজেপি প্রার্থী। যদিও ভারতী ঘোষ দাবি করেন তাঁর একজন প্রার্থী হিসাবে বুথে ঢোকার সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে। ফলে সকাল থেকেই ঘাটালের বিজেপি প্রার্থীকে সামনে রেখে উত্তেজনার খণ্ডচিত্র ধরা পড়েছে।

Tags
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close