Sports

শাপমোচন অধরা, ওয়াংখেড়েতে মুম্বইয়ের কাছে হারল কলকাতা

কলকাতার কাছে প্রথম চারে টিকে থাকার লড়াই। কিন্তু মুম্বইয়ের জন্য হারলেই এবারের মত প্রথম চারে যাওয়ার স্বপ্ন প্রায় শেষ। এই অবস্থায় মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়েতে যখন কলকাতা নাইট রাইডার্স ও মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের ২ অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক ও রোহিত শর্মা টস করতে নামলেন তখন মাঠে সূর্য আগুন ঢালছে।

টস জিতে এদিন প্রথমে মুম্বইকে ব্যাট করতে পাঠান কার্তিক। প্রথম ২ ওভারে তেমন এঁটে উঠতে না পারলেও তৃতীয় ওভার থেকে চলতে শুরু করে সূর্যকুমার যাদব ও লিউইসের ব্যাট। মাঠে সূর্য মাথার ওপর আগুন ঢালছে, আর সবুজ গালিচায় আগুন ঢালতে শুরু করেন মুম্বইয়ের সূর্য।

সূর্য ও লিউইসের ২ জনের ওপেনিং পার্টনারশিপ মুম্বইকে ৯১ রান পর্যন্ত টেনে নিয়ে যায়। লিউইস ২৮ বলে ৪৩ রান করে ফেরার পর হাল ধরেন সূর্যকুমার ও রোহিত শর্মা। কিন্তু এদিন কেকেআরের বোলিং আক্রমণের মুখে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি রোহিত (১১)। হার্দিক পাণ্ডিয়া ও সূর্যকুমার এরপর বেশ কিছুক্ষণ টানেন। তবে রানের গতি এ সময়ে অনেকটা পড়ে যায়।

সূর্যকুমার ৩৯ বলে ৫৯ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে আউট হওয়ার পর জুটি বাঁধেন হার্দিক ও ডুমিনি। এঁরাই খেলা শেষ পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান। মুম্বই ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৮১ রান।


কলকাতাকে জিততে গেলে ১৮২ রান করতে হবে। এই অবস্থায় খেলতে নেমে যেভাবে ক্রিস লিন ও শুভমান গিল শুরু করেছিলেন তাতে সকলে ভেবেছিলেন এই ম্যাচ হেলায় বার করে নেবে কেকেআর। পরপর ৬টা চারের পর কিন্তু ধারনা বদলে যায়। পরপর আউট হন লিন (১৭) ও গিল (৭)। দলগত ২৮ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে প্রবল চাপে পড়ে যায় কলকাতা।

হাল ধরেন রবীন উত্থাপ্পা ও নীতীশ রাণা। প্রথম দিকে হাত খুলতে না পারা রবীনের সহজ ক্যাচ হাত ফস্কায় মার্কণ্ডেয়র। আর যে কত বড় ধাক্কা তা তারপর থেকে উত্থাপ্পার ভয়ংকর মারমুখী ব্যাটই প্রমাণ দেয়। ৩৫ বলে ৫৪ রান করে রবীন যখন ফেরেন তখন কিন্তু ম্যাচ কেকেআরের দিকে ঝুঁকে গেছে। কিন্তু তারপরই নীতীশ রাণার উইকেট ফের কলকাতাকে চাপে ফেলে দেয়। জুটি বাঁধেন কার্তিক ও রাসেল। কিন্তু আটকে যায় রান।

রাসেল, কার্তিকের মত ২ মহারথীর হাত থেকে রান আসা বন্ধ হয়ে যায়। ক্রমশ হাতের বাইরে যেতে থাকে খেলা। অবশেষে রাসেলের উইকেট জয়ের সব আশা শেষ করে দেয়।

বল ও রানের ফারাক এতটাই বড় হয়ে যায় যে তা পূরণ করা অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়। শেষ পর্যন্ত চেষ্টা চালান কার্তিক ও সুনীল নারিন। তবে তা শেষ পর্যন্ত টিকে থাকার লড়াই। জেতার নয়। কলকাতা হারে ১৩ রানে।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button