World

হিমালয়ের কোলে বাড়ছে কিশোরী মায়ের সংখ্যা, চিন্তায় প্রশাসন

পুতুল খেলার বয়সেই কোলে আসছে সন্তান। তাদেরই যখন ঠিক করে বড় করার সময়, তখন তারা মা হচ্ছে। যা হুহু করে বেড়েই চলেছে। কারণটাও সাংঘাতিক।

প্রথমে কাউকে কিছু জানতে দিতেই চায়নি পরিবার। তাদের ১২ বছরের মেয়ে সন্তানের জন্ম দিচ্ছে একথা সমাজে বলতে পারেননি বাবা-মা। লুকিয়ে প্রসব হয় বাড়িতেই। কিন্তু সমস্যা হয় শিশুটিকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতেই।

১২ বছরের বালিকা মায়ের কোলে সন্তান দেখে স্বাস্থ্যকর্মীরা দ্রুত প্রশাসনকে খবর দেন। তারপরই সামনে আসে আসল ঘটনা। ওই বালিকা জানায় ৩৫ বছরের এক ব্যক্তি তার সঙ্গে জোর করে শারীরিক মিলন ঘটিয়েছে। তারই ফল এই সন্তান।

হিমালয়ের দেশ ভুটানে এ কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। বরং সে দেশে ক্রমশ বেড়েই চলেছে কিশোরী মায়ের সংখ্যা।

সরকারি হিসাব বলছে ২০২০ সালেই ২৩৭টি এমন ঘটনা পাওয়া গিয়েছে দেশে। যার মধ্যে দেশের রাজধানী থিম্পুতেই ঘটেছে ৫৫টি এমন ঘটনা।


Pregnant
গর্ভবতী, প্রতীকী ছবি

ভুটানের সমাজকর্মীরা দাবি করেছেন অনেক পরিবারই বিষয়টি লুকিয়ে যায়। তাই সংখ্যাটা এর চেয়েও আসলে বেশি।

১৮ বছরের কম বয়সীদের সন্তানসম্ভবা হওয়ার কারণ হিসাবে কিন্তু সামনে আসছে তাদের সঙ্গে জোর করে শারীরিক মিলনের ঘটনা। এমন ঘটনা দেশে বেড়েই চলেছে। আর তা লুকিয়ে যাচ্ছে কিশোরীর পরিবার।

পরে অনেকে সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়ছে। তাদের পুতুল খেলার বয়সে তাদের মা হতে হচ্ছে। দেশের প্রশাসন বিষয়টি নিয়ে পদক্ষেপ শুরু করেছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button