Entertainment

জন্মদিনেই বিপাকে মিঠুন চক্রবর্তী, পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের মুখে অভিনেতা

মানিকতলা থানার আধিকারিকদের জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়লেন মিঠুন চক্রবর্তী। তাঁর বিরুদ্ধে মানিকতলা থানায় একটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। সেই সূত্র ধরেই এদিনের জিজ্ঞাসাবাদ।

রাজ্যে বিভিন্ন হিংসার পিছনে রয়েছে ভোট প্রচারের সময় মিঠুন চক্রবর্তীর উস্কানিমূলক মন্তব্য। মিঠুন চক্রবর্তীর উস্কানিমূলক মন্তব্যকে রাজ্যে হিংসার জন্য দায়ী করে মানিকতলা থানায় এক ব্যক্তি অভিযোগ দায়ের করেন। সেই এফআইআর নাকচ করার দাবি নিয়ে মিঠুন চক্রবর্তী হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন। কিন্তু হাইকোর্ট সেই আবেদন নাকচ করে দেয়। তারপরই মানিকতলা থানা মিঠুন চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিস পাঠায়। অবশেষে বুধবার সকাল ১০টায় স্থির হয় মিঠুন চক্রবর্তীকে ভার্চুয়ালি জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

বুধবার সকাল ১০টার একটু পর থেকেই শুরু হয় মিঠুন চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদ। চলে প্রায় ৪৫ মিনিট। মানিকতলা থানার তদন্তকারী আধিকারিকরা অভিনেতাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন।

মিঠুন চক্রবর্তীর বেশ কিছু সিনেমার সংলাপ বিখ্যাত হয়েছে। যেমন, মারব এখানে লাশ পড়বে শ্মশানে, আমি জলঢোঁড়াও নই, বেলেবোড়াও নই, আমি জাত গোখরো, এক ছোবলেই ছবি-র মত সংলাপ সিনেমার পর্দায় তাঁকে বলতে দেখে দর্শকরা আনন্দ পেয়েছেন।

কিন্তু সেই একই সংলাপ তিনি নির্বাচনী প্রচারে বারবার ব্যবহার করেন। সেখানেই লুকিয়ে ছিল উস্কানি বলে অভিযোগ সামনে এসেছে।

রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের আগে মিঠুন চক্রবর্তী বিজেপিতে যোগ দেন। তিনি ভোটে না দাঁড়ালেও বিজেপির হয়ে প্রচার করেন। অনেক রোড শো-তে তাঁকে দেখতে মানুষের ভিড় উপচে পড়ে। জনসভায় ভাষণও দিতে দেখা যায় বাংলার আর এক দাদাকে।

এর আগে অবশ্য মিঠুন চক্রবর্তী তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ছিলেন। বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপিতে যোগ দিয়ে তাঁকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রচারে দেখতে পাওয়া যায়। বিজেপির এ রাজ্যে প্রচারে অন্যতম তারকা মুখ ছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী।

Show More
Back to top button