Sports

কেকেআর অধিনায়কের পদ ছাড়লেন দীনেশ কার্তিক

মু্ম্বই ম্যাচ শুরু হতে আর কিছুক্ষণ। তার আগে কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন দীনেশ কার্তিক। কেকেআর কর্তৃপক্ষের তরফে সেকথা জানানো হয়েছে।

আবুধাবি : এবার আইপিএল শুরু হওয়ার পর থেকেই কলকাতার অধিনায়ক দীনেশ কার্তিকের অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল বিভিন্ন মহলে। অধিনায়ক হিসাবে চরম ব্যর্থ দীনেশ বলেও চলছিল নেট দুনিয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ। এমনকি দীনেশকে দলের অধিনায়ক পদ থেকে সরানোর দাবিতে হ্যাশট্যাগও চালু হয়েছিল।

এমনও শোনা যাচ্ছিল দীনেশ যদি অধিনায়কত্ব ধরে রেখে হেরে যান তাহলে তাঁকে কেকেআর ম্যানেজমেন্টই সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে দীনেশ কার্তিক চাপে ছিলেন। তারমধ্যে তাঁর ব্যাট থেকে পরের পর ম্যাচে রান আসছিলনা। একমাত্র পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ম্যাচ ছাড়া এখনও ৬টি ম্যাচেই ব্যর্থ দীনেশ। এতটা চাপ হয়তো সহ্য করতে পারলেননা দীনেশ কার্তিক।


আকর্ষণীয় খবর পড়তে ডাউনলোড করুন নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

কেকেআর সিইও ভেঙ্কি মাইসোর জানিয়েছেন, দীনেশ কার্তিক অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। তিনি তাঁর ব্যাটিংয়ে ফোকাস করতে চাইছেন। তাই অধিনায়কত্বের চাপ নিতে চাইছেন না। কেকেআর-এর নতুন অধিনায়ক করা হয়েছে ইংল্যান্ডের অধিনায়কত্ব করে দলকে বিশ্বকাপ এনে দেওয়া ইয়ন মর্গানকে।

ভেঙ্কি আরও জানিয়েছেন, দীনেশের মত অধিনায়ক পাওয়াটা দলের জন্য খুব বড় ব্যাপার ছিল। দীনেশের কাছে দলই ছিল প্রথম। এমন একটা সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য যথেষ্ট মনের জোরের দরকার পড়ে। যা দীনেশ এদিন করে দেখালেন।

দীনেশের এমন একটি সিদ্ধান্তে তাঁরা প্রাথমিকভাবে হতবাক বলেই জানিয়েছেন ভেঙ্কি। তবে তাঁরা দীনেশের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাচ্ছেন।

ভেঙ্কির মতে, এই পরিস্থিতিতে দলে ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক রয়েছেন এটাও দলের জন্য বড় পাওনা। তাঁর ধারণা মর্গান এই নতুন দায়িত্বে দলকে আরও ভাল জায়গায় নিয়ে যেতে পারবেন।

মুম্বই ম্যাচের আগেই এমন একটি সিদ্ধান্তে কেকেআর-এর অন্দরমহলে কিছুটা আলোড়ন দেখা দেয়। তবে এমনটা যে হতে পারে তার একটা ইঙ্গিত এবার প্রতিযোগিতা শুরুর পর থেকেই পাওয়া যাচ্ছিল।

টিম ম্যানেজমেন্টও যে দীনেশের পারফরমেন্সে খুশি ছিলনা তেমনও শোনা যাচ্ছিল। ফলে এটা যেন হওয়ারই ছিল। হল মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে খেলতে নামার আগে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *