Foodie

মন ভাল করা জিভে জল আনা ‘চটপটে ছোলা’ – রেসিপি

কাঁচা হোক বা সিদ্ধ, ছোলা খেতে আমাদেরও কমবেশি অনেকেরই বেশ লাগে। ছোলার পুষ্টিগুণও অপরিসীম। বাঙালি মাত্রেই ছোলা দিয়ে টকঝাল কাবলিমাখা, তরকারি, ঘণ্ট, ডাল অনেক কিছু খায়। কিন্তু পরিচিত রেসিপির বাইরে একটু অন্যরকম করে ছোলার স্বাদ পেতে চান? এখন তো মায়েদের কাছে সব থেকে বড় সমস্যা বাচ্চাকে কি টিফিন করে দেওয়া যায়? তাই তাদের জিভে জল আনতে বানিয়ে ফেলুন খুব সহজে চটপটে ছোলা।

উপকরণ :

২০০ গ্রাম সিদ্ধ ছোলা, ২ টো মাঝারি আকারের আলু (সিদ্ধ), দুটো মাঝারি আকারের পেঁয়াজ, একটা বড় টমেটো, ৪-৫টি কাঁচা লঙ্কা, ৪ টেবিল চামচ সাদা তেল, ১ ইঞ্চি আদার টুকরো, অর্ধেক চামচ গোটা জিরে, ১ চামচ জিরে গুঁড়ো, অর্ধেক চামচ ধনে গুঁড়ো, অর্ধেক চামচ শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো, ৪-৫ দানা গোটা গোলমরিচ, ২-৩টি গোটা শুকনো লঙ্কা, পরিমাণ মতো নুন-চিনি-হলুদ, ১টি পাতিলেবু, ১ আঁটি ধনে পাতা।

প্রণালী :

সিদ্ধ আলুগুলোকে চৌকো করে কাটুন। একটা পেঁয়াজ কুচি কুচি করে কাটবেন। আরেকটা পেঁয়াজ গোল করে কাটবেন। টমেটোগুলোকেও গোলগোল করে কাটবেন। আদা লম্বা সরু করে কাটবেন। জিরে-ধনে-শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো ও গোলমরিচ তাওয়াতে নেড়েচেড়ে ভাজুন (মশলা যেন পুড়ে না যায়)। এবার, কড়াইতে সাদা তেল গরম করে তাতে গোটা জিরে ও গোটা শুকনো লঙ্কা ফোঁড়ন দিন। পেঁয়াজ কুচি ও আদা কুচি দিয়ে সোনালি রং করে ভাজুন। এরপর সিদ্ধ ছোলা ও আলু দিয়ে অল্প নাড়াচাড়া করুন। পরিমাণ মতো নুন, হলুদ, সামান্য চিনি দেবেন (যাঁরা মিষ্টি পছন্দ করেন না, দেবেন না)। ওপর থেকে ভেজে রাখা মশলা প্রায় ২ চামচ মতো দিন। গোল করে কাটা পেঁয়াজ ও টমেটো দিন, দেখবেন যেন পেঁয়াজ ও টমেটো ভাজা না হয়, নরম কিন্তু হাল্কা কাঁচা থাকবে, তবেই খেতে ভালো লাগবে। ওপর দিয়ে আধখানা লেবুর রস ও ধনেপাতা কুচি ছড়িয়ে নাড়িয়ে-চাড়িয়ে নামিয়ে নিন। গরম গরম নিজেও খান, পরিবারকেও খাওয়ান।

ছোলার উপকারিতা :

ছোলায় আছে কার্বোহাইড্রেট, খনিজ লবণ, ভিটামিন বি-১ ও বি-২, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস ইত্যাদি। কোষ্ঠকাঠিন্য, মেদ, শরীরে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে ছোলা সাহায্য করে। যদিও কাঁচা বা অঙ্কুরিত ছোলা খাওয়াই বেশি ভাল। কিন্তু মাসে ২-৩ বার জিভের স্বাদ বদল ঘটাতে এই রেসিপিটি চেখে দেখাই যায়।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button