World

বোমা, গুলি, আত্মঘাতী বিস্ফোরণ, জঙ্গি হানায় রক্তাক্ত শহর

ফের সন্ত্রাসবাদীদের মুড়িমুড়কির মত গোলাগুলি ও আত্মঘাতী হামলায় রক্তাক্ত হল কাবুল। গত বুধবার বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ কাবুলের দাস্তে বার্চি এলাকায় হঠাৎ ঢুকে পড়ে ৩ জঙ্গি। থানাই ছিল তাদের টার্গেট। থানায় ঢোকার পথ সুগম করতে প্রথমে জঙ্গিরা থানার সামনে পরপর বোমা ফাটাতে শুরু করে। এতে আগুন ধরে যায় থানার বেশ কিছুটা অংশে। এরপরই ৩ জনের মধ্যে ২ আত্মঘাতী জঙ্গি নিজেদের গায়ে বাঁধা বিস্ফোরক ফাটিয়ে দেয়। তৃতীয় আত্মঘাতী জঙ্গি থানা চত্বরে এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে। বোমা ও বারুদের ধোঁয়ায় ঢেকে যায় গোটা এলাকা। পুলিশের পাল্টা গুলি খতম করে দেয় তৃতীয় জঙ্গিকে। জঙ্গির গুলিতে মৃত্যু হয় ১ পুলিশকর্মীর এবং ১ সাধারণ নাগরিকের। গোলাগুলির মাঝখানে পড়ে জখম হয় ৯ ব্যক্তি। হামলার দায় স্বীকার করে নেয় সন্ত্রাসবাদী সংগঠন আইএস।

প্রথম হামলার ২০ মিনিটের মাথায় দ্বিতীয় হামলার ঘটনা ঘটে শাহরি নাউ এলাকায়। সেখানেও থানাই ছিল জঙ্গিদের হামলার লক্ষ্য। কাবুলের প্রতিরক্ষামন্ত্রকের তরফে জানান হয়েছে, প্রথম হামলার কায়দাতে থানায় ঢুকতে প্রথমে কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটায় ৩-৪ জন সশস্ত্র জঙ্গি। প্রথম জঙ্গি হামলার ঘটনা জানাজানি হতে কিছুটা সতর্ক ছিল কাবুলের অন্যান্য থানাগুলি। তাই আর কোনও ভুল করেনি পুলিশ। তাদের সাঁড়াশি চাপে পিছু হটতে বাধ্য হয় জঙ্গিরা। পুলিশ-জঙ্গি কয়েক ঘণ্টার গোলাগুলিতে মৃত্যু হয় জঙ্গিদের। অতর্কিত জঙ্গি হামলায় থানার পাশ দিয়ে পালাতে যাওয়া ১ পথচারী গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। আহত হন বেশ কয়েকজন। তবে দ্বিতীয় জঙ্গি হামলায় কোনও পুলিশকর্মীর মৃত্যুর খবর নেই। জঙ্গি সংগঠন তালিবান এই হামলার দায় স্বীকার করেছে। লাগাতার জঙ্গি হামলায় জেরবার আফগান প্রশাসন জঙ্গি হামলা রুখতে এবার নতুনভাবে ভাবনা চিন্তা শুরু করেছে।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.