World

বাস্তবেই সাক্ষাত লম্বকর্ণ, কানের জোরে রাতারাতি সুপারস্টার ছোট্ট সিম্বা

সবে তো জুন মাসে মায়ের পেট থেকে পড়েছে। এরমধ্যেই সে সুপারস্টার। সারা বিশ্ব তাকে চিনে গিয়েছে। এক কানের জোরেই বিশ্বে তার এখন আলাদা কদর।

জুন মাসে জন্ম হয়েছে তার। সারা বিশ্বে কত ছাগলই তো জন্মাচ্ছে। কে তার হিসাব রাখে! কিন্তু এ তো জন্মেই তারকা! রাজশেখর বসুর লম্বকর্ণ যে বাস্তবের মাটিতে হেঁটে বেড়াবে তা হয়তো লেখকও আশা করেননি।

তবে বাস্তবেই ১ মাসের ছোট্ট ছাগলটি এখন সুপারস্টার। কারণ সারা বিশ্বের মানুষ তাকে নয়, তার কান দেখতে ব্যস্ত। যিনি দেখছেন চোখ ফেরাতে পারছেন না।

ইতিমধ্যেই তার এক একটি কান ২২ সেন্টিমিটার করে লম্বা হয়ে গেছে। হাত দিয়ে টেনে ধরলে চমকে যেতে হয় তার লম্বা কান দেখে।

পাকিস্তানের করাচিতে জন্ম হয়েছে এই বিরলতম ছাগলের। নাম দেওয়া হয়েছে সিম্বা। সিম্বার কান মাটিতে লুটোতে থাকে। মাঝেমধ্যেই সে তার কানের ওপর দাঁড়িয়ে পড়ে বিপত্তি ঘটাচ্ছে। তার নিজের কানই নিজের পায়ে লুটিয়ে যাচ্ছে। টালমাটাল হয়ে পড়ছে সিম্বা।


কানেও সজোরে টান লাগছে। ফলে তার কান এখন গুটিয়ে তার পিঠের কাছে বেঁধে দিতে হচ্ছে। যাতে নিজের কানে পা জড়িয়ে পড়ে গিয়ে সে আঘাত না পায়।

এমন অবস্থা হয়েছে যে করাচি তো বটেই, এমনকি পাকিস্তানের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেও মানুষজন সিম্বার কান দেখতে হাজির হচ্ছেন সিম্বার মালিকের কাছে।

আর্জি একটাই। একবার যদি তিনি সিম্বাকে দেখতে দেন। রাতদিন সিম্বাকে দেখার আবদারে বেজায় সমস্যায় পড়েছেন তার মালিক মহম্মদ হাসান। প্রসঙ্গত পাকিস্তানে ছাগলের চাষ বিখ্যাত। সেই ছাগলদের মধ্যই এবার বিশ্বে পাকিস্তানের সুনাম ছড়াল তাদের শিশু লম্বকর্ণ।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button