World

কাগজ প্রায় শূন্য, বাজার থেকে উধাও পড়াশোনার বইখাতা

ছাত্রছাত্রীরা পড়েছে আতান্তরে। পড়ার জন্য স্কুল যে বইয়ের বুক লিস্ট দিচ্ছে, তা বাজারে পাওয়া যাচ্ছেনা। পুরো বইয়ের বাজার থেকে উধাও হয়ে গেছে বিভিন্ন ক্লাসের পাঠ্যপুস্তক।

বুনিয়াদি শিক্ষা থেকে শুরু করে উচ্চশিক্ষা, সব ক্ষেত্রেই ছাত্রছাত্রীদের ন্যূনতম প্রয়োজন বই। পাঠ্যপুস্তক ছাড়া তাদের পক্ষে এক পাও এগোনো সম্ভব নয়। সেই পাঠ্যপুস্তকই বাজার থেকে উধাও হয়ে গেছে।

এমনই পরিস্থিতি পাকিস্তানের। পাকিস্তান জুড়েই এখন পাঠ্যপুস্তকের হাহাকার শুরু হয়েছে। আর তা হয়েছে কাগজের অভাবের জন্য।

ছাপার জন্য কাগজই অমিল। যাও বা পাওয়া যাচ্ছে, তা প্রকাশনী সংস্থাগুলোর পক্ষে কিনে ওঠা দুষ্কর হচ্ছে। কারণ কাগজের দামের ওপর কর চাপিয়ে পাক সরকারই তার দাম ধরাছোঁয়ার বাইরে নিয়ে গেছে। বিদেশ থেকেও কাগজ আসা বন্ধ। স্থানীয়ভাবে যেটুকু কাগজ তৈরি হয় তার দাম আকাশ ছুঁয়েছে।

এই অবস্থায় তারা আর বই ছাপতে অপারগ বলে জানিয়ে দিয়েছে পাকিস্তানের পাবলিশার্স অ্যান্ড বুক সেলার্স গিল্ড। যা পুরনো বই কারও কাছে ছিল তা বিক্রি হয়ে গেছে।

এদিকে পাকিস্তানে নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের তাদের নতুন ক্লাসের পড়া এগোনোর জন্য বইয়ের দরকার। কিন্তু কোত্থাও বই নেই। এভাবে গোটা দেশের শিক্ষাব্যবস্থা অচিরেই মুখ থুবড়ে পড়তে পারে বলে মনে করছেন শিক্ষাবিদেরা।

পাকিস্তানের আর্থিক দুরবস্থার কথা কারও অজানা নয়। সরকার রাজকোষের বেহাল দশা সামাল দিতে বিভিন্ন কর বাড়িয়ে দিয়েছে বা নতুন কর আরোপ করেছে।

প্রকাশনী সংস্থাগুলি এই অবস্থায় পাক সরকারের কাছে সাফ জানিয়ে দিয়েছে যদি কাগজের দাম বেঁধে দেওয়া না হয় তাহলে তাদের পক্ষে আর বই ছাপানো কোনওমতেই সম্ভব নয়। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.