National

সন্দেহের বশে মুরগি বিক্রেতাকে হত্যা করল মাওবাদীরা

লকডাউন হলেও মুরগির মাংস বিক্রিতে ছাড় রয়েছে। তাই বিক্রির জন্য মুরগি নিতে গিয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকে তাঁকে আর পাওয়া যাচ্ছিল না।

করোনায় গোটা দেশটা ঘরে বন্দি। করোনায় মৃত্যুর খবর প্রতিদিনই বাড়ছে। বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে জঙ্গিদের মতই মাওবাদীরাও তাদের হিংসাত্মক কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

সোমবার এক ব্যক্তিকে গুলি করে ফেলে দিয়ে যায় তারা। এই হত্যার দায়ও স্বীকার করেছে নিষিদ্ধ সংগঠন সিপিআই মাওবাদী। রাজ কিশোর নামে ওই ব্যক্তিকে নিছক সন্দেহের বশেই হত্যা করে ফেলে দিয়ে যায় মাওবাদীরা বলে জানাচ্ছে পুলিশ।

মৃত ব্যক্তির পরিবার জানিয়েছে রাজ কিশোর মুরগি বিক্রির কাজ করতেন। লকডাউন হলেও মুরগির মাংস বিক্রিতে ছাড় রয়েছে। তাই বিক্রির জন্য মুরগি নিতে গিয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকে তাঁকে আর পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে তাঁর গুলিবিদ্ধ নিথর দেহ ফেলে দিয়ে যায় মাওবাদীরা। মাওবাদীরা জানিয়েছে, ওই ব্যক্তি পুলিশের চর হিসাবে কাজ করছিলেন বলে মনে করছে তারা। তাই তাঁকে হত্যা করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ঝাড়খণ্ডের পশ্চিম সিংভূম জেলার ভালুরুঙ্গি গ্রামে। পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। ঘটনার জেরে গ্রামে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।


প্রসঙ্গত ঝাড়খণ্ডের ২৪টি জেলার মধ্যে ১৮টি জেলাতেই মাওবাদীদের যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে। মাওবাদী গেরিলারা যখন তখন হামলা চালায় এখানে। পুলিশ রাজ কিশোরের মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button