Kolkata

রাজ্যে প্রবলভাবে বাড়ছে সংক্রমণ

রাজ্যে এক লাফে ১ হাজার ৭০০ পার করে গেল একদিনে সংক্রমণ। এদিন নমুনা পরীক্ষা বেড়েছে। সুস্থতার হার কমেই চলেছে।

কলকাতা : মার্চ জুড়েই দেশের সঙ্গে সঙ্গে এ রাজ্যেও দৈনিক সংক্রমণ বেড়েছে। যা এখন প্রাত্যহিকভাবে বেড়েই চলেছে। এপ্রিলের প্রথম দিনে এসে রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ ১ হাজার ২০০ পার করে গিয়েছিল। পরদিন তা ১ হাজার ৭০০ পার করে গেল। রাজ্যে এখন হুহু করে বাড়ছে সংক্রমণ।

গত একদিনে সংক্রমিত হয়েছেন ১ হাজার ৭৩৩ জন। এদিন নমুনা পরীক্ষাও গত দিনের তুলনায় ১ হাজারের ওপর বেড়েছে। রাজ্যে এদিন মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২৬ হাজার ৯৮৬টি। রাজ্যে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ লক্ষ ৮৯ হাজার ৯২২ জন।

এদিনও রাজ্যে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। দীর্ঘদিন রাজ্যে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা কমছিল। এখন কিন্তু টানা ঠিক উল্টো হচ্ছে। এদিনও বাড়ল অ্যাকটিভ রোগী। এদিন অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা বেড়ে এক লাফে সাড়ে ৭ হাজার পার করল। অ্যাকটিভ রোগী দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ৬৯২ জনে।

মার্চের প্রথম দিনেই রাজ্যে মৃত্যু শূন্যে নেমেছিল। এদিন রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। আগের দিনের চেয়ে ২ জন বেশি মানুষের প্রাণ কেড়েছে করোনা। এদিনের মৃতের সংখ্যার হাত ধরে রাজ্যে এখন মোট মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৩৩৫ জনে।

গত একদিনে রাজ্যে করোনায় যে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে তার মধ্যে রাজ্যের অন্যতম করোনা বিধ্বস্ত জেলা কলকাতা রয়েছে। কলকাতায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনায় কোনও মৃত্যু নেই এদিন। তবে রাজ্যের অন্য করোনা বিধ্বস্ত জেলা হাওড়ায় আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর কোনও জেলায় মৃত্যু হয়নি।

ক্রমশ কমতে থাকা মৃত্যু সংখ্যার জেরে এখন মানুষ অনেকটা স্বস্তিতে বাড়ির বাইরে কাজে বার হচ্ছেন। তবে অনেকের মুখে মাস্ক না থাকা কিছুটা হলেও চিন্তার কারণ হচ্ছে।

ইতিমধ্যেই দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে। কিছু মানুষের করোনা বিধি পালনে অনীহা পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলতে পারে বলেই আশঙ্কা করছে খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

রাজ্যে একই সঙ্গে অনেক রোগী সুস্থ হয়ে ফিরছেন। গত একদিনে ৫৫০ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। যার হাত ধরে এদিন রাজ্যে করোনামুক্ত মানুষের মোট সংখ্যাটা দাঁড়িয়েছে ৫ লক্ষ ৭১ হাজার ৮৯৫ জন। সুস্থতার হার কমে ৯৭ শতাংশের ঘর থেকে ৯৬ শতাংশের ঘরে এদিন নেমে এসেছে। নেমে দাঁড়িয়েছে ৯৬.৯৪ শতাংশ। — রাজ্যসরকারের স্বাস্থ্য দফতরের দৈনিক বুলেটিন-এর সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button