National

৫০ জন মহিলা চালক ও ৫০ জন মহিলা গাইড কাজ করবেন অভয়ারণ্যে

চিরাচরিত কাজ এটা নয়। একটু যেন অন্য রুটে ঘোরা। সেই কাজেও এবার এগিয়ে এলেন মহিলারা। পর্যটকদের বন্যপ্রাণ চেনাবেন তাঁরা।

নয়াদিল্লি : যাঁরা বিভিন্ন জঙ্গলে ঘুরতে যান তাঁরা জানেন অভয়ারণ্যে ঘুরতে গেলে সেখানে একা ঘোরা যায়না। একজন গাইড লাগে। যিনি চিনিয়ে দেন, জানিয়ে দেন বিভিন্ন জায়গা যেখানে পৌঁছলে বন্য জন্তুর দেখা পাওয়া যেতে পারে। সেইসঙ্গে বন্য জন্তুদের আচরণের সঙ্গেও পরিচিত করার চেষ্টা করেন তাঁরা।

অন্যদিকে হিংস্র জানোয়ারে ভরা অভয়ারণ্যে ঘুরতে গেলে সেখানে পায়ে হেঁটে ঘোরা যায়না। পদে পদে থাকে বিপদের হাতছানি। তাই সেখানে ঘোরার জন্য গাড়ি লাগে। যাতে চেপে পর্যটকরা বেরিয়ে পড়েন গহন জঙ্গলে বন্য জন্তুর দেখা পেতে। সেই কাজেই এবার আধুনিক মানসিকতার ছোঁয়া লাগল।

ঘরকন্না থেকে উড়োজাহাজ চালানো, মহিলারা প্রতিক্ষেত্রেই প্রমাণ করছেন সুযোগ পেলে তাঁরা সবই করতে পারেন। বহুদিন ধরে তাঁরা সেই সুযোগ থেকেই বঞ্চিত ছিলেন। তবে সময় পাল্টেছে। তার সাথে পাল্টেছে মানুষের মানসিকতাও। মহিলারা আজ আর শুধু গৃহবধূ হয়েই জীবন কাটিয়ে দেন না। পূরণ করেন তাঁদের স্বপ্নগুলোও।

পুরুষদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পুলিশ থেকে সেনাবাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পদে আসীন হচ্ছেন তাঁরা। আরও যেসব পেশায় সচরাচর মহিলাদের দেখা যেত না সেইসব পেশাতেও এখন মহিলারা বিশেষ ভাবে নজর কাড়ছেন। তেমনই এক নজির সৃষ্টি হল।

উত্তরাখণ্ড সরকার এবার মহিলাদের এমন কিছু কাজে যুক্ত করতে চলেছে যেগুলিতে এখনও পর্যন্ত কেবল পুরুষদেরই দেখতে পাওয়া যেত। উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী তিরথ সিং রাওয়াত সম্প্রতি ঘোষণা করেছেন জিম করবেট টাইগার রিসার্ভে ৫০ জন নেচার গাইড ও ৫০ জন জিপসি চালককে নেওয়া হবে। তবে তাঁরা শুধুমাত্র মহিলা হবেন। জিম করবেট টাইগার রিসার্ভই হল ভারতের প্রথম অভয়ারণ্য যেখানে মহিলাদের একাজে যুক্ত করা হবে।

এই সিদ্ধান্ত খুবই আশাপ্রদ হয়েছে মহিলাদের কাছে। স্বনির্ভর হওয়ার সাথে সাথে সমাজে সাম্যতাও আনবে এমন অভিনব সিদ্ধান্ত। ৫০টি জিপসি গাড়ি কেনার জন্যও নাম নথিভুক্ত করার কাজ শুরু হবে। বীরচন্দ্র সিং গাড়োয়ালি যোজনার মাধ্যমে মহিলারা গাড়ি কেনার জন্য সরকারিভাবে আর্থিক সাহায্য পাবেন।

সব মিলিয়ে মোট ৫০০০ জন যুবক ও ৫০০০ জন যুবতীকে দেশের বিভিন্ন জাতীয় উদ্যান ও অভয়ারণ্যগুলিতে গাইডের কাজ করার জন্য তৈরি করা হবে বলে জানানো হয়েছে সরকারের তরফে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button