Virat Kohli
সুপার ওভারে ফের ম্যাচ ছিনিয়ে নেওয়ার পর বিরাট কোহলি, ছবি - আইএএনএস

ফের সুপার ওভারে গড়াল খেলা, ফের হারল নিউজিল্যান্ড

বিশ্বকাপ ফাইনালেও হেরেছিল। গত ম্যাচেও হেরেছিল। এবার শুক্রবারের টি-২০-তেও হারল নিউজিল্যান্ড। সুপার ওভারে ম্যাচ গড়ালে নিউজিল্যান্ডের হার তাদের জন্য একটা অভিশাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে গত ম্যাচের মতই এদিনের ম্যাচও প্রায় হাতছাড়া হতে বসেছিল ভারতের। সেই ম্যাচে অসামান্য প্রত্যাবর্তনের নজির এদিনও গড়লেন বিরাটের ছেলেরা। ২০ ওভারের পর ২ দলের রান সমান হওয়ার পর সুপার ওভারে গিয়ে খেলার ফলাফল স্থির হয়। আর সেখানে ভারত সহজ জয় ছিনিয়ে নেয়। ১টা চার ও ১টা ছক্কা হাঁকিয়ে সুপার ওভারে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন কেএল রাহুল।

আগেই সিরিজ হাতছাড়া হয়েছে নিউজিল্যান্ডের। এবার লড়াই হোয়াইট ওয়াশ হওয়া রোখার। সেই লক্ষ্যে শুক্রবার চতুর্থ টি-২০ খেলতে নামে ভারত। টস জিতে নিউজিল্যান্ড ভারতকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায়। এদিন রোহিত না থাকায় রাহুলের সঙ্গে ওপেন করতে নামেন সঞ্জু স্যামসন। কিন্তু দ্রুত ফেরেন। তারপর ভারতের একের পর এক উইকেট পতন হতেই থাকে। পরপর ৬ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। হাল ধরেন মণীশ পাণ্ডে ও শার্দূল ঠাকুর। এঁরা ২ জনেই রানকে একটা চ্যালেঞ্জিং অবস্থায় পৌঁছে দেন। শার্দূল ফেরার পর শেষে নভদীপ সাইনিকে নিয়ে লড়েন মণীশ। ৩৬ বলে ৫০ রান করে ভারতকে ১৬৫ রানের স্কোরে পৌঁছে দেন তিনি।

১৬৬ রান করলে জিতবে। এই অবস্থায় ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ডের গাপটিল ৪ রান করে ফেরেন। কিন্তু ভাল ব্যাট করতে থাকেন মুনরো। সিফার্টকে সঙ্গে নিয়ে মুনরো নিউজিল্যান্ডকে জয়ের লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন। ৪৭ বলে ৬৪ রান করে ফেরেন মুনরো। তবে জয়ের পরিস্থিতি তৈরি করে যান। মুনরোর পর ব্রুস নেমেই ০ রানে ফেরেন। এবার নিউজিল্যান্ড জয়ের লক্ষ্যে ছুটতে থাকে সিফার্ট ও টেলরের চওড়া ব্যাটে ভরসা করে।

টেলর যখন ২৪ রান করে ফেরেন তখন ৫ বলে দরকার ছিল ৭ রান। কিন্তু হাঁকপাঁক করতে গিয়ে গত ম্যাচের পুনরাবৃত্তি ঘটে এদিনও। বল করছিলেন শার্দূল ঠাকুর। তাঁকে প্রহার করতে গিয়ে নিউজিল্যান্ড পরপর উইকেট হারাতে থাকে। শেষ ওভারে ৬ বলের মধ্যে ৪টি উইকেট পড়ে। বাকি ২ বলে ৬ রান তোলে নিউজিল্যান্ড। আর তাতেই সমতা ফেরে। ১৬৫ রান করে ২ দলের হয়ে যাওয়ায় ম্যাচ ফের গড়ায় সুপার ওভারে।

সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড। প্রথমে ব্যাট করে ১ উইকেট হারিয়ে কিউয়িরা তোলে ১৩ রান। গত ম্যাচে তুলেছিল ১৭ রান। ভারত ব্যাট করতে নামার পর রাহুল একটি ছক্কা ও একটি চার মেরে দলের জন্য ২ বলে ১০ রান তুলে দেন। বাকি ৪ রান ১ বল বাকি থাকতেই তুলে নেন বিরাট ও সঞ্জু স্যামসন। ফের টানটান ম্যাচ জিতে নেয় ভারত। ৫ ম্যাচের সিরিজে ভারত এখন ৪-০-তে এগিয়ে। শেষ টি-২০ ম্যাচ আগামী রবিবার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *