Health

বছরের শেষেই ভারতে মিলবে টিকা, আশ্বস্ত করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কবে মিলবে এ দেশে করোনা প্রতিষেধক টিকা? মানুষের এই প্রশ্নের উত্তর দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।

নয়াদিল্লি : ভারতে সংক্রমণ বেড়ে চলেছে। অনেকে সুস্থও হয়ে উঠছেন। কিন্তু সংক্রমণে লাগাম পরছে না। সংক্রমণে লাগাম দিতে গেলে যে টিকা আবশ্যিক তা আগেই বিশেষজ্ঞেরা জানিয়ে দিয়েছেন। এটাও বিশেষজ্ঞেরা জানিয়েছেন করোনা রুখতে টিকা আবিষ্কার খুব কঠিন কাজ হবে না। তবে টিকা তৈরি করতে এবং তার কার্যকারিতা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীনতা নিশ্চিত হতে কিছুটা সময় তো লাগবেই। আপাতত সেই সময়টাই লাগছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞেরা। তবু যত করোনা বাড়ছে ততই মানুষের মধ্যে একটা প্রশ্ন মাথাচাড়া দিচ্ছে। কবে মিলবে টিকা? নানা মহল থেকে নানা দাবি সামনে আসছিল টিকা হাতে পাওয়া নিয়ে। কিন্তু দরকার ছিল তেমন কারও মুখ খোলা, যাঁর কথায় ভরসা করা যেতে পারে। সেই ভরসাটাই এবার দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।

আগেই সেরাম ইন্সটিটিউটের তরফে একটা ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল যে এ বছরের শেষেই এসে যাবে টিকা। শুরু হবে উৎপাদন। তবে এবার দেশবাসী অনেক বেশি নিশ্চিন্ত হলেন। কারণ স্বয়ং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন জানিয়ে দিলেন আগামী ৪-৫ মাসের মধ্যেই ভারতে করোনা প্রতিষেধক টিকা এসে যাবে। ২০২০ সালের শেষেই মিলবে এই টিকা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী একথা জানানোর পর দেশবাসী এখন অনেকটাই নিশ্চিত হলেন যে বছর শেষেই ভারত পেতে চলেছে টিকা।

১৫ অগাস্ট লালকেল্লায় নিজের ভাষণ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছিলেন দেশে টিকা এসে গেলে তা কত দ্রুত সকলকে দেওয়া যাবে তার রূপরেখা ইতিমধ্যেই তাঁর সরকার তৈরি করে ফেলেছে। দেশে ৩টি টিকা তার ট্রায়াল স্তরে সবচেয়ে এগিয়ে আছে বলেও জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এখন অপেক্ষা কবে পাওয়া যাবে সেই টিকা।

ভারতের নিজস্ব টিকা ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন তার দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল স্তর পূর্ণ করে তৃতীয় স্তরে যাওয়ার অপেক্ষায়। অন্যদিকে অক্সফোর্ডের তৈরি টিকার ট্রায়ালও চলছে এ দেশে। যা তৈরি করছে ব্রিটেনের অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউট। এছাড়াও একটি টিকা ইতিমধ্যেই তাদের দ্বিতীয় পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করে দিয়েছে। সেটি হল জাইডাস ক্যাডিলার। এটি অবশ্য বাজারজাত হতে সামনের বছরের প্রথম দিক হয়ে যাবে বলে সংস্থার তরফেই জানানো হয়েছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button