National

সন্ধে নামতেই একসঙ্গে জ্বলে উঠল ২২ লক্ষ মাটির প্রদীপ

দীপাবলি মানেই তো আলোর উৎসব। সেই দীপাবলির আগের রাতে একসঙ্গে জ্বলে উঠল ২২ লক্ষ মাটির প্রদীপ। চোখ যতদূর গেল, শুধুই প্রদীপের শিখা।

যতদূর চোখ যায় শুধুই প্রদীপের শিখা আলতো হাওয়ায় নড়ছে। সে প্রদীপ চোখে দেখে, গুনে শেষ করা যায়না। মাটির প্রদীপের এমন প্রজ্বলন শুধু দুচোখ ভরে দেখা যায়। আর দেখা যেতেই থাকে। এ দৃশ্য থেকে চোখ ফেরানো মুশকিল। দীপাবলি মানেই তো আলোর উৎসব। সেই আলোর উৎসবে যত আলোই দেওয়া হোক না কেন মাটির প্রদীপের আলোর স্নিগ্ধতা খুঁজে পাওয়া মুশকিল।

সেই মাটির প্রদীপই জ্বলে উঠল সন্ধে নামতেই। দীপাবলির আগের সন্ধেয় ২২ লক্ষ ২৩ হাজার মাটির প্রদীপ যখন একসঙ্গে জ্বলে উঠল তখন তা এক স্বর্গীয় আবহ সৃষ্টি করেছিল।

অযোধ্যা শহরে দীপোৎসব কয়েক বছর হল চালু হয়েছে। প্রথম বছরেই সরযূ নদীর তীরে মাটির প্রদীপ জ্বলে উঠেছিল। ক্রমে হাজার থেকে লক্ষ। তারপর বছর ঘুরলে সেই লক্ষ মাটির প্রদীপ তার সংখ্যা বৃদ্ধি করতে থাকে। এবছর সেই প্রদীপের সংখ্যা আগের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে।

অযোধ্যা শহরের গা দিয়ে বয়ে গেছে সরযূ নদী। অযোধ্যায় এই নদীর ওপর ৫১টি ঘাট রয়েছে। এই ৫১টি ঘাটেই দীপোৎসব উৎসব পালিত হয় শনিবার দীপাবলির আগের সন্ধেয়।

নদীর ২ ধারে জ্বলে ওঠে ২২ লক্ষ ২৩ হাজার মাটির প্রদীপ। যা দেখতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ হাজির হয়েছিলেন এই শহরে। ২০১৭ সালে দীপোৎসব শুরু হয়েছিল। সে বছর জ্বলে উঠেছিল ৫১ হাজার প্রদীপ। এবার সেটা ২২ লক্ষ পার করল।

বলা হয় রামচন্দ্র যেদিন ১৪ বছরের বনবাস শেষ করে রাবণকে যুদ্ধে পরাজিত করে অযোধ্যায় ফেরেন, সেদিন তাঁকে স্বাগত জানাতে অযোধ্যার প্রতিটি পরিবার তাদের বাড়িকে মাটির প্রদীপে আলোকিত করে তোলে। যা গোটা অযোধ্যা শহরকে আলোয় আলোয় ভরিয়ে দেয়। শ্রীরামচন্দ্রকে স্বাগত জানানো সেই উৎসবকে মাথায় রেখে এবছরও অযোধ্যা সেজে উঠল দীপোৎসবের মাটির প্রদীপের আলোর ছটায়। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button