Tuesday , June 25 2019
Dilip Ghosh
ফাইল : দিলীপ ঘোষ, ছবি - আইএএনএস

বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা ঘিরে অশান্তি, ইটবৃষ্টি, লাঠিচার্জ, ঝরল রক্ত

মাথার হাত দিয়েও রক্ত চেপে রাখা যাচ্ছে না। মাথা ফেটে গেছে তাঁর। পুলিশের উর্দিও ভরেছে রক্তে। মাথা থেকে গাল বেয়ে গড়িয়ে পড়ছে রক্ত। এই অবস্থায় তাঁর দিকে অন্যদিক থেকে তখন ছুটে আসছে ইট, পাথর। এমনই এক ইট ফাটিয়ে দেয় ওই পুলিশকর্মীর মাথা। পুলিশ অবস্থা নিয়ন্ত্রণ করতে লাঠিচার্জ শুরু করে। পাল্টা তাণ্ডবে সিভিক ভলেন্টিয়ার এক মহিলাও আহত হন। গোটা এলাকা রণক্ষেত্রের চেহারা নেয়।

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার বেলায়। দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে সামনে রেখে অভিনন্দন যাত্রা শুরু করে বিজেপি। সেই মিছিলের পথ আটকায় পুলিশ। জানায় এভাবে এখানে মিছিল ও সভা করার অনুমতি নেই। কিন্তু সেকথায় কর্ণপাত না করেই এগিয়ে যান দিলীপ ঘোষ। মিছিল হয়। সভাও হয়। সেখানে দিলীপবাবুকে অভিনন্দন জানান দলীয় নেতা কর্মীরা। এরপরে দিলীপবাবুর গন্তব্য ছিল গঙ্গারামপুর।

দুপুরে গঙ্গারামপুরেও মিছিল শুরু হয়। অভিনন্দন যাত্রাকে কেন্দ্র করে বহু বিজেপি কর্মী সমর্থক মিছিলে পা মেলান। ফুলের বৃষ্টি শুরু হয়। এই অবস্থায় ফের তাঁদের পথ আটকায় পুলিশ। ফের দিলীপবাবুকে পুলিশ জানায় এখানে মিছিল করতে পারবেন না তাঁরা। এখানেও বিজেপির রাজ্য সভাপতির সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় পুলিশের। পরে ব্যারিকেড ভেঙে মিছিল এগোয়। তারপরই পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি শুরু হয়। পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। পুলিশও পাল্টা লাঠিচার্জ শুরু করে। রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা।

পুলিশের লাঠিচার্জে বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী আহত হন। অন্যদিকে পুলিশের দিকে উড়ে আসা ইটে মাথা ফাটে এক পুলিশকর্মীর। আহত হন সিভিক ভলেন্টিয়ার। দীর্ঘক্ষণ এই অবস্থা চলার পর কিছুটা শান্ত হয় পরিস্থিতি। ঘটনায় বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অবস্থা পরে শান্ত হলেও গঙ্গারামপুর জুড়ে চাপা উত্তেজনা বজায় ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *