State

১০ বছরের উন্নয়নেই আত্মবিশ্বাসী গলসির তৃণমূল প্রার্থী

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে এলাকায় উন্নয়নের কাজ হয়েছে। জয়ের বিষয়ে একরকম নিশ্চিত গলসির তৃণমূল প্রার্থী নেপাল ঘড়ুই।

গত বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিটে রায়না বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জয়লাভ করেছিলেন নেপাল ঘড়ুই। চলতি বিধানসভা নির্বাচনে নেপালবাবুকে বর্ধমানের গলসি কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করা হয়েছে। বর্তমানে চুটিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন। নেপালবাবুর দাবি, তৃতীয়বার জয়লাভ করে ফের তিনিই বিধায়ক হবেন।

৪৩ বছরের তৃণমূল প্রার্থী নেপালবাবু একসময় কংগ্রেস করতেন। ছাত্র রাজনীতির মাধ্যমে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে হাতেখড়ি। তৃণমূল কংগ্রেস গঠনের পর কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান।

নেপালবাবুর বক্তব্য, দল পাল্টানোর কথা ভাবতে পারেন না। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে বাংলাব্যাপী ব্যাপক উন্নয়নের কাজ হয়েছে গত ১০ বছরে। সেই ধারা অব্যাহত থাকবে, ভোটারদের মূলত একথাই বলছেন তিনি। মানুষ তাঁকে বিশ্বাস করছেন। প্রত্যন্ত গ্রামের মানুষের কাছ থেকে প্রচারে বেরিয়ে ভালো সাড়া পাচ্ছেন বলে দাবি করলেন নেপাল ঘড়ুই।

গত বিধানসভা নির্বাচনে গলসি কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী। এবছর তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিপক্ষ হিসাবে রয়েছেন ফরওয়ার্ড ব্লক এবং বিজেপির প্রার্থী। নেপালবাবু বামপ্রার্থীকে মোটেও আমল দিচ্ছেন না। জানালেন, বিজেপি প্রার্থীকে নিয়েও একেবারেই চিন্তিত নন। গলসিতে বিজেপির কোনও জনভিত্তি নেই।

নেপালবাবু আরও জানালেন, তাঁর নির্বাচনী সভাগুলিতে প্রচুর সংখ্যক মহিলা যোগ দিচ্ছেন। সংখ্যালঘু এলাকাতেও প্রচারে ভালো সাড়া মিলছে।
জিতলে গলসি বিধানসভা কেন্দ্রে কোন কাজগুলিকে অগ্রাধিকার দেবেন? এব্যাপারে নেপালবাবু বললেন, রাস্তাঘাট সংস্কার ও প্রতিটি বাড়িতে পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হবে। স্থানীয় যে কলকারখানাগুলি বন্ধ অবস্থায় পড়ে রয়েছে, সেগুলি খোলার ব্যাপারেও উদ্যোগ নেবেন তিনি। স্থানীয় কৃষকরা চাষের কাজের জন্য যাতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পান, সে বিষয়টিকেও অগ্রাধিকার দেবেন।

সারা বছর সমাজসেবার কাজ করেন নেপালবাবু। সেইসঙ্গে রাজনীতি তো আছেই। নেপালবাবু জানালেন, প্রচারে বেরোনোর আগে দুপুরের খাবার হিসেবে বাড়ির রান্না টিফিনবাক্সে নিয়ে বার হচ্ছেন। হাল্কা খাবার খাচ্ছেন। রুটি এবং ভাত মিশিয়ে খাচ্ছেন। বিকেলের খাবার হিসাবে বরাদ্দ জলে ভেজানো চিনি বা গুড় মাখানো মুড়ি।

আগামী ২২ এপ্রিল গলসি বিধানসভা কেন্দ্রে নির্বাচন। ২০১৬ সালে এই কেন্দ্রে জয়লাভ করেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী অলোক কুমার মাঝি। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ফরওয়ার্ড ব্লক প্রার্থী নন্দলাল পণ্ডিত।

এবার লড়াইটা মূলত তৃণমূল বনাম বিজেপি প্রার্থীর হলেও তৃণমূল প্রার্থী নেপালবাবুর দাবি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সৌজন্যে লড়াইয়ের ময়দানে তিনি অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন।

Show More