National

থানায় বসে মদ্যপান, বন্দিকেও অফার, বেকায়দায় পুলিশ আধিকারিক

থানায় বসে মদ্যপান করে সমস্যায় পড়লেন এক পুলিশ আধিকারিক। এমনকি তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি গারদে থাকা এক বন্দিকেও মদ্যপানে আহ্বান জানান।

থানায় বসে কর্তব্যরত অবস্থায় এক পুলিশ আধিকারিকের মদ্যপান নিয়ে হইচই শুরু হল। অভিযোগ এএসআই পদমর্যাদার এক পুলিশ আধিকারিক ডিউটি আওয়ার্স-এ থানায় বসেই মদ্যপান করছিলেন। এমনকি তিনি মদ্যপান করতে করতে ওই থানার লকআপে বন্দি এক ব্যক্তিকেও মদ্যপানের জন্য আমন্ত্রণ জানান।

রামচন্দ্র পণ্ডিত নামে ওই এএসআই পদমর্যাদার আধিকারিক থানায় বসে মদ্যপান করছেন এই অভিযোগ পেয়ে নিজেই সেখানে হাজির হন এসএইচও সিয়ারাম যাদব। গিয়ে ওই পুলিশ আধিকারিককে মদ্যপ অবস্থায় দেখতে পান। তাঁর রিপোর্টের পর ওই এএসআই-কে সাসপেন্ড করা হয়।

শুধু থানায় বসে মদ্যপান বলেই নয়, ওই পুলিশ আধিকারিক এমন এক রাজ্যে বসে মদ্যপান করছিলেন যেখানে মদ কেনা বা পান করায় নিষেধাজ্ঞা জারি আছে।

বিহারের মুজফ্ফরপুর জেলার মীনাপুর থানায় কর্তব্যরত ওই পুলিশ আধিকারিক পরে উর্ধ্বতন পুলিশ আধিকারিকদের জানান, তিনি একটি বিয়ে বাড়িতে গিয়েছিলেন। সেখানে কয়েকজন বন্ধু মিলে তাঁকে মদ্যপান করান।

তিনি কোনও বন্দিকে মদ্যপানে আমন্ত্রণ জানাননি বলেও জানিয়েছেন রামচন্দ্র পণ্ডিত। তিনি তাঁর কাজের জন্য ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন।

তিনি তাঁর উর্ধ্বতন পুলিশ আধিকারিকদের এও জানান যে তাঁর আর ৭ বছর বাকি অবসর গ্রহণে। এতদিনের কর্মজীবনে এই প্রথম তাঁর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ সামনে এল। তাই প্রথম অপরাধ হিসাবে এই ঘটনায় তাঁকে যেন ক্ষমা করে দেওয়া হয়। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.