World

কড়া ব্যবস্থা নিতে এসে সকলের সঙ্গে চুটিয়ে নেচে ফিরে গেল পুলিশ

২ পুলিশকর্মী ঘটনাস্থলে হাজির হয়েছিলেন কড়া ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যই। কিন্তু সেখানে পৌঁছে এমনকি হল যে তাঁরা নাচগানে মশগুল হয়ে গেলেন।

অভিযোগটা এসেছিল এক পরিবারের কাছ থেকে। রাত হয়ে গেছে কিন্তু এসব কি চলছে? দয়া করে ব্যবস্থা নিন। এমন আবেদন শুনে কড়া পদক্ষেপ করতেই ঘটনাস্থলে হাজির হন ২ পুলিশকর্মী।

কিন্তু সেখানে পৌঁছে যা ঘটল তাতে যাঁরা অভিযোগ করেছিলেন তাঁরাও হতবাক। কড়া পদক্ষেপ করা তো দূরের কথা, ২ পুলিশকর্মীই নাচগানে মশগুল হয়ে গেছেন।

বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। ভারতীয়দের বিয়ে মানেই পরিবারপরিজন মিলে হইচই, খাওয়াদাওয়া, নাচগান আর প্রচুর আনন্দ। বিদেশে বিভূঁইয়ে একা থাকা প্রবাসীরা বিয়ের সময় পরিবারকে পেয়ে আরও আনন্দে মেতে ওঠেন।

এমন এক বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ট্রেসি শহরের বাসিন্দা এক ভারতীয় পরিবারে। মনপ্রীত তুরের পরিবারের এই বিয়ের অনুষ্ঠানে বাড়ির পিছনের লনে গান চালিয়ে চলছিল নাচ, আনন্দ, হইচই।

ঘড়িতে রাত ১০টা বেজে যাওয়ার পরও এভাবে গান চলায় বিরক্ত এক প্রতিবেশি পুলিশে ফোন করেন। পুলিশের ২ আধিকারিক এসে মনপ্রীতের দরজায় কড়া নাড়েন।

ভিতরে আসার পর তাঁরা দেখেন সেখানে বিয়ের অনুষ্ঠান চলছে। তুর পরিবারের সকলে প্রাথমিকভাবে পুলিশ দেখে ভীত হলেও পরে তাঁরা ২ পুলিশ আধিকারিককে আপ্যায়নে ত্রুটি করেননি। সেইসঙ্গে তাঁরা দ্রুত গানের আওয়াজ কমিয়ে দেন। যাতে কারও সমস্যা না হয়।

এখানেই শেষ নয়, পুলিশকর্মীদের তাঁরা তাঁদের আনন্দে শামিল হতে বলেন। কয়েকজন ২ পুলিশকর্মীকে গানের সঙ্গে নাচের ভঙ্গি কেমন হবে দেখিয়ে দেন।

২ পুলিশকর্মী তুর পরিবারের আতিথেয়তায় মুগ্ধ হয়ে যান। তাঁরাও গানের সঙ্গে নাচের তালে পা মেলান। বেশ কিছুটা সময় তুর পরিবারের সঙ্গে আনন্দ উৎসবে শামিল হয়ে কাটানোর পর ২ পুলিশকর্মী ফিরে যান।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.