National

অবশেষে দেশে সামান্য কমল সংক্রমণ

২৪ ঘণ্টায় ১ লক্ষ ৬২ হাজারের কাছে সংক্রমিতের খোঁজ মিলল ভারতে। অর্থাৎ গত দিনের তুলনায় কিছুটা কমল সংক্রমণ। যা সামান্য আশার আলো দেখাচ্ছে।

এপ্রিলের শুরুতেই দেশ করোনা সংক্রমণে রেকর্ড উচ্চতা ছুঁয়ে ১ লক্ষ পার করে। তারপর থেকে তা বেড়েই চলছিল। টানা ১২ দিন ধরে বেড়েছে সংক্রমণ। গত দিন তা ১ লক্ষ ৭০ হাজারের দরজায় পৌঁছে যায়। অবশেষে ত্রয়োদশ দিনে এসে সামান্য হলেও কমল সংক্রমণ। টানা বেড়ে চলায় সাময়িক ইতি পড়ল।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের দাপটে দেশে মঙ্গলবার ১ লক্ষ ৬১ হাজার ৭৩৬ জন সংক্রমিতের খোঁজ মিলল। মহারাষ্ট্র, পঞ্জাব, ছত্তিসগড়, গুজরাট, কেরালা, তামিলনাড়ু তো বটেই এখন কর্ণাটক, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, পশ্চিমবঙ্গ সহ অন্য রাজ্যেও বাড়ছে সংক্রমণ।

সংক্রমণের বাড়বাড়ন্তে দেশে ক্রমশ অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ফেব্রুয়ারিতেও যেখানে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা কমতে কমতে ১ লক্ষের নিচে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল, সেখানে বাড়তে বাড়তে তা এদিন সাড়ে ১২ লক্ষ পার করল।

এদিন নমুনা পরীক্ষা গত দিনের থেকে ২ লক্ষের ওপর বেড়েছে। ১৪ লক্ষ ১২২টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা গত দিনের তুলনায় বাড়ার পাশাপাশি সংক্রমণ গত দিনের তুলনায় কমেছে। এটা ইতিবাচক ইঙ্গিত বলেই মনে করা হচ্ছে।

রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধির হাত ধরে দেশে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা এদিন ১ কোটি ৩৬ লক্ষ ৮৯ হাজার ৪৫৩ জনে দাঁড়িয়েছে। এখন একদিনে দেড় লক্ষ পার করছে সংক্রমিতের মোট সংখ্যা।

সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা এদিনও সংক্রমিতের চেয়ে অনেক কম হয়েছে। ফলে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা অনেক বেড়েছে। এদিন দেশে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা সাড়ে ১২ লক্ষের ওপর পৌঁছে গেছে। দাঁড়িয়েছে ১২ লক্ষ ৬৪ হাজার ৬৯৮ জনে। একদিনে বেড়েছে ৬৩ হাজার ৬৮৯ জন।

এদিকে করোনা অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা বাড়ায় অ্যাকটিভ রোগীর শতাংশের হারও ফের বেড়েছে। বেড়ে হয়েছে ৯.২৪ শতাংশ।

এপ্রিল শুরুই হয়েছে সাড়ে ৪০০ পার করা দৈনিক করোনায় মৃত্যু দিয়ে। এদিন তা সামান্য নেমেছে। একদিনে মৃত্যু হয়েছে ৮৭৯ জনের। এদিনের মৃতের সংখ্যার হাত ধরে দেশে মোট করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ৭১ হাজার ৫৮ জন। মৃত্যুর হার ১.২৬ শতাংশ থেকে কমে হয়েছে ১.২৫ শতাংশ।

গত একদিনে দেশে রাজ্য ভিত্তিক যে মৃতের সংখ্যার খতিয়ান সামনে এসেছে তাতে একদিনে করোনায় মৃত্যুর নিরিখে পশ্চিমবঙ্গ কিছুটা পিছিয়েই রয়েছে। রাজ্যে গত দিন ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত একদিনে মহারাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছে ২৫৮ জনের। ছত্তিসগড়ে ১৩২ জন প্রাণ হারিয়েছেন করোনায়। পঞ্জাবে ৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। কর্ণাটকে ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুজরাটে মৃত্যু হয়েছে ৫৫ জনের। উত্তরপ্রদেশে মৃত্যু হয়েছে ৭২ জনের। দিল্লিতেও মৃত্যু হয়েছে ৭২ জনের।

করোনা সংক্রমণ ফের বাড়তে শুরু করায় দৈনিক সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা দৈনিক সংক্রমিতের তুলনায় অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯৭ হাজার ১৬৮ জন।

এর হাত ধরে দেশে করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ২২ লক্ষ ৫৩ হাজার ৬৯৭ জন। সুস্থতার হার নেমে দাঁড়িয়েছে ৮৯.৫১ শতাংশে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More
Back to top button