National

আশা জাগিয়ে দেশে ফের ৫০০-র নিচে নামল মৃত্যু

দেশে কিছুটা হলেও মৃত্যু গত একদিনে কমেছে। নেমেছে ৫০০-র নিচে। কমেছে সংক্রমণ। সেইসঙ্গে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যাও গত একদিনে নেমেছে।

নয়াদিল্লি : অক্টোবর জুড়েই দেশে সংক্রমণ ক্রমশ নিচে নেমেছে। কমেছে মৃত্যুও। নভেম্বর পড়েও সেই অক্টোবরের ধারাবাহিকতা বজায় ছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবার যেন তাতে ছন্দপতন হয়। ৫০ হাজার ছুঁয়ে ফেলে সংক্রমণ। শুক্রবার আবার তা নামে ৪০ হাজারি ঘরে। শনিবার ফের তা ৫০ হাজার ছোঁয়।

প্রসঙ্গত অক্টোবরে সংক্রমণ কমে ৭০ হাজার, তারপর ৬০ হাজার হয়ে ৫০ হাজারি ঘর এবং তারপর আরও নেমে ৪০ হাজারি ঘরে ঘুরেছে। মাঝে একদিন তো ৩০ হাজারি ঘরেও প্রবেশ করে সংক্রমণ। সব মিলিয়ে অক্টোবরে দেশে সংক্রমণ ছিল নিম্নমুখী। যা অবশ্যই আশার আলো দেখিয়েছে। নভেম্বরে পড়েও সেই ধারা বজায় ছিল।

পরে অবশ্য ৩০ হাজারি ঘরে নেমেও ফের ওপরে উঠেছে সংক্রমণ। এদিনও সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা নতুন সংক্রমিতের চেয়ে সামান্য বেশি হয়েছে।

গত একদিনে দেশে নতুন করে সংক্রমিতের সংখ্যাটা দাঁড়িয়েছে ৪৫ হাজার ৯০৩ জন। গত একদিনে দেশে ৮ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪০১টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। গত দিনের তুলনায় নমুনা পরীক্ষা অনেকটা কমেছে।

গত একদিনের রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধির হাত ধরে ৮৫ লক্ষ ৫৩ হাজার ৬৫৭ জনে দাঁড়িয়েছে দেশে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা। গত একদিনে সংক্রমিতের সংখ্যার চেয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা বেশি হওয়ায় দেশে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা আরও কমেছে। দাঁড়িয়েছে ৫ লক্ষ ৯ হাজার ৬৭৩ জনে। একদিনে কমেছে ২ হাজার ৯৯২ জন।

অক্টোবরে দেশে দৈনিক মৃতের সংখ্যা ৩ অঙ্কের ঘরেই অধিকাংশ সময় থেকেছে। অক্টোবরের শেষে ৫০০-র ঘরেই ছিল দৈনিক মৃত্যু। নভেম্বরের ১ তারিখ থেকে পরপর ৩ দিন ৪০০-র ঘর ধরে রাখে মৃত্যু সংখ্যা।

তারপর ফের তা বেড়ে গিয়েছিল। আবার তা গত একদিনে ৫০০-র নিচে নেমে গেল। এদিনের মৃতের সংখ্যার হাত ধরে দেশে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ২৬ হাজার ৬১১ জন। ১.৪৯ শতাংশ মৃত্যুর হার রয়েছে দেশে।

করোনা রোগী ও মৃত্যু যেমন বেড়ে চলেছে তেমনই অন্যদিকে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সুস্থ হয়ে ওঠার হার। গত একদিনেও সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা সংক্রমিতের সংখ্যার চেয়ে বেশি হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৮ হাজার ৪০৫ জন। দেশে মোট করোনামুক্ত মানুষের সংখ্যা এদিন দাঁড়িয়েছে ৭৯ লক্ষ ১৭ হাজার ৩৭৩ জন। দেশে সুস্থতার হার ৯২ শতাংশের ওপরে রয়েছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button