National

দেশে কিছুটা কমল সংক্রমণ, সুস্থতার হার বাড়ল

টানা ৭০ হাজারের দরজায় ঘোরাফেরা করার পর গত একদিনে কিছুটা হলেও কমল সংক্রমণ। পাশাপাশি সুস্থতার হারও বাড়ল।

নয়াদিল্লি : দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। কদিন আগেই তা লাফ দিয়ে পৌঁছে গিয়েছিল ৭০ হাজারের দরজায়। সেটাই এখন প্রাত্যহিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত একদিনে সেই প্রবণতায় ছেদ পড়ল। দেশে গত একদিনে নতুন করে করোনা রোগী পাওয়া গিয়েছে ৬১ হাজার ৪০৮ জন। প্রায় ৮ হাজার কমল তার আগের দিনের তুলনায় সংক্রমণ। তবে এই সংক্রমণ কমার পিছনে একটা বড় কারণ হতে পারে নমুনা পরীক্ষায় উল্লেখযোগ্য হ্রাস। ২ দিন আগেও যেখানে দেশে ১০ লক্ষের ওপর নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল সেখানে গত একদিনে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে মাত্র ৬ লক্ষ ৯ হাজার ৯১৭টি। নমুনা পরীক্ষা অনেকটা কমে যাওয়ায় সংক্রমণও কমেছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞেরা।

গত একদিনের রোগী বৃদ্ধির সংখ্যার পর দেশে এখন মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৩১ লক্ষ পার করে গেছে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩১ লক্ষ ৬ হাজার ৩৪৮ জন। দেশে এখন অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৭ লক্ষ ১০ হাজার ৭৭১ জন। দেশে সুস্থ হয়ে ওঠা পাল্লা দিয়ে প্রতিদিন বাড়তে থাকায় সংখ্যার নিরিখে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে কমই থাকছে।

দেশে যখন করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে তখন বাড়ছে করোনায় মৃত্যুও। গত একদিনে ৮৩৬ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। প্রতিদিনই প্রায় ১ হাজার করে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। এদিনের মৃতের সংখ্যার হাত ধরে ৫৭ হাজার পার করে গেল ভারতে করোনায় মৃত্যু। বর্তমানে দেশে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৭ হাজার ৫৪২ জন। দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রের অবস্থা এখনও সবচেয়ে খারাপ। ২৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছে গত একদিনে। কর্ণাটকে মৃত্যু হয়েছে ৬৮ জনের। তামিলনাড়ুতে গত একদিনে মৃত্যু হয়েছে ৯৭ জনের। অন্ধ্রপ্রদেশে ৯৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। দেশে করোনায় মৃত্যুর হার দাঁড়িয়েছে ১.৮৬ শতাংশে। যেখানে বিশ্বে এখন মৃত্যুর হার প্রায় সাড়ে ৩ শতাংশ।

করোনা রোগী ও মৃত্যু যেমন বেড়ে চলেছে তেমনই অন্যদিকে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সুস্থ হয়ে ওঠার হার। গত একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৭ হাজার ৪৬৯ জন। এর ফলে দেশে মোট করোনামুক্ত মানুষের সংখ্যা ২৩ লক্ষ পার করে গেল। দেশে এখন মোট করোনামুক্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৩ লক্ষ ৩৮ হাজার ৩৫ জন। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা


Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button