Kolkata

চেয়ার নয়, ২৪-এ বিজেপি হঠানোই একমাত্র লক্ষ্য, হুংকার মমতার

২৪-এর লোকসভা নির্বাচনের আগে শেষ ২১শে জুলাই মঞ্চ থেকে বিজেপিকে ২০২৪ সালে কেন্দ্রে গদিচ্যুত করাই তাঁর লক্ষ্য বলে জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

চেয়ার নয়, কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে হঠানোই যে তাঁর একমাত্র লক্ষ্য তা ২১শে জুলাই মঞ্চ থেকে স্পষ্ট করে দিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সবে জন্ম নিয়েছে বিজেপি বিরোধী জোট ইন্ডিয়া। ২৬ দলের এই জোটের অন্যতম শরিক তৃণমূল।

এদিন ২১শে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে আগামী বছর লোকসভা নির্বাচনে জোটে তৃণমূলের অবস্থান কার্যত সাধারণ মানুষের কাছে স্পষ্ট করে দিলেন মমতা। তাঁর কথা শুনতেই লক্ষ লক্ষ মানুষ এবারও হাজির হয়েছিলেন বাংলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে।


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

কলকাতা শহর বেলা বাড়তেই কার্যত অচল হয়ে যায়। রাস্তায় থাকা অধিকাংশ মানুষের গন্তব্যই ছিল ধর্মতলা। মাঝে মাঝে বৃষ্টির জেরে কালো ছাতা নজর কেড়েছে শহর জুড়ে। অন্যান্য বছরের মতই এবারও ধর্মতলা ও তার আশপাশের এলাকায় তিল ধারণের জায়গা ছিলনা।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঞ্চে ওঠার আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি বিরোধী সুর চড়িয়ে জানিয়ে দেন আগামী ২ অক্টোবর দিল্লিতে কৃষিভবন অভিযান হবে। কেন্দ্রের কাছ থেকে ১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা আদায় করাই হবে লক্ষ্য। তার আগে ৫ অগাস্ট রাজ্যে ৮ ঘণ্টার জন্য বিজেপি নেতাদের বাড়ি ঘেরাওয়ের ডাক দেন অভিষেক।

কেন্দ্রের কাছ থেকে ১০০ দিনের কাজের টাকা না পাওয়ার কথা জানিয়ে মমতা এদিন নতুন এক ঘোষণা করেছেন। খেলা হবে প্রকল্প ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই প্রকল্পে রাজ্যসরকার ১০০ দিনের কাজের মত দরিদ্রদের ৫০ দিনের মত কাজ দেবে। তার টাকাও পাবেন তাঁরা। সেইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী এদিন পঞ্চায়েত নির্বাচনে হিংসার প্রসঙ্গও টেনে আনেন।

যে হিংসা নিয়ে কার্যত রাজ্যসরকার কোণঠাসা সেই সম্বন্ধে বলতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পাল্টা দাবি করেন পঞ্চায়েত নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে তৃণমূল কর্মীদের। তৃণমূল তো আর তৃণমূলকে মারেনি।

জ্বলতে থাকা মণিপুরের তাণ্ডব প্রসঙ্গ টেনে মুখ্যমন্ত্রী এদিন বিজেপির বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও শ্লোগানকে তুলোধোনা করেছেন। তাঁর প্রশ্ন কোথায় গেল বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও। মণিপুরের ঘটনা সামনে এনে মমতা বলেন দেশের মেয়েরা এখন জ্বলছে।

এদিন মঞ্চ থেকে ২০২৪ সালে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে পর্যুদস্ত করার বার্তা যে বড় জায়গা পাবে তা অনুমান করছিলেন বিশেষজ্ঞেরা। সেটাই কিন্তু দেখা গেছে।

এদিন সকালে মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাসভবনের সামনে একটি কালো গাড়ি ঘিরে তৎপর হয় পুলিশ। গাড়ি থেকে পরে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার হয়।

গাড়িতে থাকা নিজেকে পুলিশ পরিচয় দেওয়া নূর আমিন নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাঁর পুলিশ পরিচয় ভুয়ো। কি উদ্দেশ্যে তিনি সেখানে এসেছিলেন তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button