National

নাকু লা পাস-এ ভারত-চিন সেনার সংঘর্ষ

ফের ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা চালাল চিনা সেনা। আর তা কড়া প্রতিরোধে রুখে দিল ভারতীয় সেনা। এতে ২ পক্ষের সেনার মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে।

নয়াদিল্লি : উত্তর সিকিমের নাকু লা পাস। ভারত ও চিনের যে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা রয়েছে, তা এই নাকু লা-র ওপর দিয়েও গিয়েছে। এখানেই চলছিল ভারত ও চিন সেনা আধিকারিক স্তরে এক ম্যারাথন বৈঠক।

সেই বৈঠকের মাঝেই চিনের সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করে। যা তারা গালওয়ানেও করেছিল। ভারতীয় সেনারা তা কঠোর হাতে রুখে দিয়েছিলেন। যাতে ২০ জন ভারতীয় সেনার মৃত্যুও হয়েছিল গত বছরের ১৫ জুন। চিনের সেই পরদেশ আগ্রাসনের চেষ্টা যে সেখানেই থামেনি তা ফের প্রমাণিত হল নাকু লা পাসে।

সংবাদ সংস্থা জানাচ্ছে, নাকু লা পাস-এর এই ঘটনায় ২ পক্ষের বেশ কয়েক জন সেনা আহত হয়েছেন। চিনের ঠিক কতজন সেনা আহত হয়েছেন তা অবশ্য পরিস্কার নয়। তবে বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

ভারতীয় প্রতিরোধের মুখে পড়ে চিনা সেনা পিছু হঠে ফের তাদের ভূখণ্ডে ফিরে যায়। ২ দেশের স্থানীয় সেনা আধিকারিকরা বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করেন। তাঁরাই পুরো পরিস্থিতি তখনকার মত শান্ত করেন। প্রোটোকল মেনেই ২ পক্ষ পরে নিরস্ত হয়।


চিনের সঙ্গে ভারতের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা রয়েছে ৩ হাজার ৪৮৮ কিলোমিটার। এরমধ্যে নাকু লা অন্যতম স্পর্শকাতর সীমানা। ভারত ও চিনের মধ্যে সেনা আধিকারিক পর্যায়ে বারবার বৈঠক চলছে সীমান্ত সমস্যা মেটানো নিয়ে। যা গত বছর গালওয়ানের পর থেকে আরও ঘনঘন হচ্ছে।

ভারত চাইছে চিনা সেনা যেন সীমান্ত থেকে সরে। কিন্তু চিন সে বিষয়ে সহমত হচ্ছেনা। ফলে সমস্যাও মিটছে না। যার জেরে বারবার বৈঠক হচ্ছে। কিন্তু ফলপ্রসূ হচ্ছেনা।

গত শনিবার ও রবিবারও ভারত ও চিনের সেনা আধিকারিকরা বৈঠকে বসেন। সে বৈঠকে ঠিক কী হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। তবে এই বৈঠকের ২ মাস আগেও একটি বৈঠক হয়েছিল। কিন্তু তাতেও কাজের কাজ কিছু হয়নি। সীমান্তে ভারত ও চিন ২ দেশের সেনাই নিজ নিজ ভূখণ্ডে মোতায়েন রয়েছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button