Kolkata

গির্জা ফাঁকা, পার্ক স্ট্রিটে মানুষ নেই, বড়দিন ম্লান করল করোনা

বড়দিন ২৫ ডিসেম্বর হলেও তার আগের দিন সন্ধে থেকেই কার্যত বড়দিনের উৎসব শুরু হয়ে যায়। শহর কলকাতার সাহেব পাড়াতেও সেই হৈচৈ এবার একেবারেই অমিল।

কলকাতা : বছর শেষের উৎসবে গোটা বিশ্বের সঙ্গে মাতোয়ারা হয় শহর কলকাতাও। পার্ক স্ট্রিটে বড়দিনের আগের সন্ধে থেকেই উপচে পড়ে মানুষের ভিড়। রাত ১২টায় গির্জায় গির্জায় বেজে ওঠে ঘণ্টাধ্বনি। শুরু হয় প্রার্থনা। রাতে গির্জায় গির্জায় এই হাজির হন খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বী মানুষজন।

কলকাতার পার্ক স্ট্রিটের সঙ্গে মেতে ওঠে বো ব্যারাক। কিন্তু এবার প্রতি বছরের সেই চেনা ছবি উধাও। উধাও পার্ক স্ট্রিটের ভিড়। উধাও কেকের দোকানে লম্বা লাইন।

উধাও পার্ক স্ট্রিটের রেস্তোরাঁগুলির চরম ব্যস্ততা। নেই মানুষের স্রোতও। দুর্গাপুজোর পর কোনও রাস্তায় এমন ভিড় এ শহরে আর হয়না। সেই ছবিও এবার করোনার কোপে বেমালুম উধাও।

পার্ক স্ট্রিটে উৎসবের সূচনা এবার করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। নিজেও গির্জায় হাজির হয়েছিলেন বড়দিনের আগের সন্ধেয়। আলোয় আলোয় ভরে উঠেছিল পার্ক স্ট্রিট চত্বর।


সবই ছিল। কেবল প্রাণটুকু ছিলনা। ছিলনা মানুষের সেই চরম উৎসাহ। কিন্তু মানুষ যে আসেননি এমনটা নয়। কিন্তু সেই উন্মাদনা কোথাও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এবার গির্জায় গির্জায় প্রার্থনার ক্ষেত্রে আগেই জানানো হয়েছিল যে সেখানে সাধারণের প্রবেশ নিষেধ। ফলে সেই ভিড় নেই। সারা রাত ধরে বড়দিনে মাতোয়ারা পার্ক স্ট্রিট এবার রাত জাগল না বলাই ভাল। ধর্মতলা চত্বরেও আগের সন্ধের ভিড় নেই। বহু খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বী মানুষ দিনটি উদযাপন করেছেন বাড়িতেই।

বড়দিনের সঙ্গে বাঙালির বেড়ানোর একটা নিবিড় যোগ চিরকালীন। এবার সেই উন্মাদনাতেও ভাটার টান। চিড়িয়াখানা, ভিক্টোরিয়া, নিক্কো পার্ক, ইকো পার্ক, মিলেনিয়াম পার্ক সহ বিভিন্ন জায়গায় বড়দিনের সকাল থেকেই যেভাবে মানুষ ভিড় জমান তা কিন্তু এবার দেখা যায়নি।

তবে ভিড় যে একদম হয়নি এমনটা নয়। হয়েছে। কিন্তু করোনা যে কোথাও একটা সেই আনন্দের আবহে দেওয়াল তুলেছে তা বড়দিনের চেহারা থেকেই স্পষ্ট। বোঝাই যাচ্ছে বছর শেষের আনন্দও এবার কার্যত করোনার প্রকোপে নমো নমো করেই শেষ হতে চলেছে।

Show Full Article
Back to top button