Lifestyle

মহৎ উদ্দেশ্যেই শহরের রাস্তায় সম্পূর্ণ পোশাকহীন কেমব্রিজের ছাত্রছাত্রীরা

উদ্দেশ্যটা অবশ্যই মহৎ। আর সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই এবার শরীরকে সম্পূর্ণ সুতোহীন করলেন ৭৮ জন ছাত্রছাত্রী। এঁরা সকলেই কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া।

তাঁদের একজনেরও শরীরে কোনও পোশাক নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া সবাই। সকলের আরও একটা পরিচয়, তাঁরা সকলেই বিশ্ববিদ্যালয়ের হয়ে বিভিন্ন খেলায় অংশ নেন। এঁরাই এবার এক মহৎ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে একটি ফোটোশ্যুটে শামিল হলেন।

এই পোশাকহীন ফোটোশ্যুটে সদ্য যৌবনের তরুণ তরুণীদের শহরের রাস্তায় দেখা গেল ছবি তুলতে। তাও আবার একেবারে পোশাকহীন হয়ে। যা দেখে প্রাথমিকভাবে চমকে গেছেন পথচারীরা। অনেকে দাঁড়িয়েও পড়েছেন। তবে এসবকে গুরুত্ব দিতে চাননি ছাত্রছাত্রীরা। বরং সাবলীলভাবেই তাঁরা ছবি তুলেছেন।

অবশ্যই তাঁরা সম্পূর্ণ পোশাকহীন ছিলেন। কিন্তু তাঁদের গোপনাঙ্গ নানাভাবে ঢাকা পড়েছে। কখনও এমনভাবে তাঁরা দাঁড়িয়েছেন তাতে গোপনাঙ্গ বাদে সবই দৃশ্যমান হয়েছে। কখনও খেলার সরঞ্জাম দিয়েই তাঁরা ঢেকেছেন গোপনাঙ্গ।

তরুণীরা তাঁদের স্তনবৃন্ত যেমন ঢেকেছেন হাত দিয়ে বা খেলার সরঞ্জাম দিয়ে বা গাছে ফুটে থাকা ফুল, পাতা দিয়ে, তেমনই নিম্নাঙ্গ ঢেকেছেন বিশেষভাবে দাঁড়িয়ে বা বসে।

তরুণরাও তাঁদের পুরুষাঙ্গ ঢেকেছেন বিশেষ ভঙ্গিমায়, অথবা খেলার সরঞ্জামে। তবে কোথাও ছিলনা কোনও আড়ষ্টতা, ছিলনা কোনও সংকোচ। যা ছিল তাকে এক অপরূপ শিল্প বলে মানতেই হয়। ১৫ মিনিট ধরে চলে এই ফোটোশ্যুট।

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের এই পোশাকহীন ফোটোশ্যুট করা হয়েছে ২০২২ সালের ক্যালেন্ডার তৈরির জন্য। আর সেই ক্যালেন্ডার তৈরির পর তা বিক্রি করে যে অর্থ পাওয়া যাবে তা যাবে ক্যানসার আক্রান্ত কিশোর কিশোরীদের চিকিৎসা সহ বিভিন্ন সেবামূলক কাজে। চলতি মাসেই প্রকাশিত হওয়ার কথা এই ক্যালেন্ডার।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button