Health

কেবল উভকামী বা সমকামীদের মধ্যেই কি আটকে থাকবে মাঙ্কিপক্স, উত্তর দিল হু

শুরু আফ্রিকায়। তারপর বিশ্বজুড়ে ছড়াতে শুরু করে। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে মাঙ্কিপক্স হচ্ছে উভকামী বা সমকামীদের শরীরে। এ নিয়ে মুখ খুলল হু।

আফ্রিকাতেই প্রথম দেখা মেলে মাঙ্কিপক্সের। তারপর তা ইউরোপে থাবা বসায়। এখন তো ভারত সহ বিশ্বের ৭৫টি দেশেই মাঙ্কিপক্সে আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে।

তবে এখনও দেখা গেছে যেসব পুরুষরা পুরুষদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করেন তাঁদের মধ্যে এই রোগের প্রাদুর্ভাব সর্বাধিক। হিসাব বলছে সমকামী ও উভকামী পুরুষরা সবচেয়ে বেশি মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হচ্ছেন।

সংখ্যাটা মোট আক্রান্তের ৯০ শতাংশ। যা থেকে এই প্রশ্ন উঠছে যে মাঙ্কিপক্স কি তবে সমকামী ও উভকামী পুরুষদের রোগ? বাকিরা কি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন? এ প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু।

হু জানাচ্ছে, এখনও সমকামী ও উভকামী পুরুষরাই সবচেয়ে বেশি মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হলেও সাধারণ মানুষও এতে আক্রান্ত হতেই পারেন। বিশেষত গর্ভবতী নারী, শিশু এবং যাঁদের শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কম তাঁরা এই রোগে আক্রান্ত হতেই পারেন।

যত বেশি এই রোগ ছড়াবে তত বেশি সাধারণ মানুষ আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বাড়বে। তখন আর তা সমকামী ও উভকামী পুরুষদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবেনা।

প্রসঙ্গত এখন বিশ্বে ১৬ হাজার মানুষ মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়েছেন। যার মধ্যে আফ্রিকায় ৫ জনের মৃত্যুও হয়েছে। ভারতেও কেরালা, দিল্লিতে এই রোগে আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে। তেলেঙ্গানায় এক ব্যক্তির দেহেও মাঙ্কিপক্সের উপসর্গ প্রকট।

এদিকে মাঙ্কিপক্সকে রুখতে অনেক দেশে স্মলপক্সের টিকা প্রদান করা শুরু হয়েছে। যদিও স্মলপক্সের টিকা মাঙ্কিপক্সের ক্ষেত্রে কতটা কার্যকরী বা আদৌ কার্যকরী কিনা তা এখনও পরিস্কার নয় বলেই জানিয়ে দিয়েছে হু। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.