State

তৃণমূল ঝড়, ইন্দ্রপতনের বন্যা

Madan Mitraতৃণমূলের ঐতিহাসিক জয়ের দিনেও কামারহাটি থেকে হারলেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা মদন মিত্র। সারদা কেলেঙ্কারিতে জেলবন্দি তৃণমূলের এই দাপুটে নেতাকে কিছুদিন আগেও দাবি করতে শোনা গিয়েছিল কামারহাটি থেকে তিনি শুধু দাঁড়ানোর অপেক্ষা। দল দাঁড় করালে জিতবেন তিনিই। টিকিট পাওয়ার পর জেলের মধ্যে থেকেই ভোটে লড়েন তিনি। বিপক্ষে তাঁর বিরুদ্ধে ২০১১-তে পরাজিত সিপিএম নেতা মানস মুখোপাধ্যায়। সেই মানস মুখোপাধ্যায়ই সিপিএমের এই দুর্দিনে মন মিত্রকে হারিয়ে শোরগোল ফেলে দিলেন। হারতে হয়েছে এতদিন বিরোধী নেতার পদ সামলে আসা সিপিএম নেতা সূর্যকান্ত মিশ্রকেও। নিজের পকেট কেন্দ্র নারায়ণগড়েই এবার পরাজিত হয়েছে তাঁকে। জোটের সমর্থনে ভোটের প্রচারে সারা রাজ্যে ঘুরে বেড়ালেও কখন যে তাঁর নিজের ঘরেই তৃণমূল নিজের জায়গা বানিয়ে নিয়েছে তা ঘুণাক্ষরেও টের পাননি রাজ্যের প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। দ্বিতীয় বারের জন্য হারতে হয়েছে সিপিএমের আর এক নেতা কান্তি গঙ্গোপাধ্যায়কেও। রায়দিঘি থেকে এবার দেবশ্রী রায়ের কাছে প‌র্যুদস্ত হতে হয়েছে তাঁকে। হারতে হয়েছে মালদহের দাপুটে তৃণমূল নেতা কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরীকেও। হারতে হয়েছে মালদহেরই তৃণমূল নেত্রী সাবিত্রী মিত্রকেও। হেরেছেন মমতা মন্ত্রিসভায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর পদ সামলে আসা চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যকেও। ফুটবলে ম্যাজিক দেখালেও শিলিগুড়িতে ম্যাজিক দেখাতে ব্যর্থ তৃণমূল প্রার্থী তথা ফুটবলার বাইচুং ভুটিয়া। মালদহে এটা তৃণমূলের বড় ধাক্কা বলেই মনে করা হচ্ছে। এবারের নির্বাচনে আকর্ষণের কেন্দ্রে থাকা বিজেপির দুই তারকা নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায় ও লকেট চট্টোপাধ্যায়কেও এদিন হারের মুখ দেখতে হয়েছে। হেরেছেন বিজেপির দুই হেভিওয়েট প্রার্থী রাহুল সিনহা ও শমীক ভট্টাচার্য। হারের মুখ দেখতে হয়েছে বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা জ্ঞানসিং সোহন পালকে। হারের মুখ দেখতে হয়েছে কংগ্রেসের হেভিওয়েট নাম সোমেন মিত্রকেও।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.