Lifestyle

টিকার ২টি ডোজ থাকলে থাইল্যান্ডে বেড়াতে যাওয়ার সুযোগ খুলছে

থাইল্যান্ডে বেড়াতে যাওয়ার সুযোগ খুলে যাচ্ছে কেবল ২টি ডোজ থাকলেই। সেক্ষেত্রে কোনও কোয়ারেন্টিন লাগবে না। তবে তা আপাতত সীমিত দেশের জন্যই।

থাইল্যান্ডের অর্থনীতির বড় ভরসা তাদের সমুদ্রতট। থাইল্যান্ডে সারা বছর বিদেশি পর্যটকের আনাগোনা লেগে থাকে। ভারতের বহু মানুষের অন্যতম বেড়ানোর গন্তব্য হয় থাইল্যান্ড।

করোনা সেই থাইল্যান্ড ভ্রমণ যেমন মানুষের জীবন থেকে কেড়ে নিয়েছিল, তেমনই থাইল্যান্ডের অর্থনীতির ওপর বড়সড় কোপ বসিয়েছিল। এবার সেই দমবন্ধ পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়তো হতে চলেছে।

থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রয়ুত চান-ও-চা জানিয়েছেন তিনি চান ১ নভেম্বর থেকে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা কম এমন দেশগুলি থেকে থাইল্যান্ডে বেড়াতে আসা পর্যটকদের কোয়ারেন্টিন বিহীন বেড়ানোয় ছাড় দেওয়া হোক। কেবল পর্যটকদের করোনা প্রতিষেধক টিকার ২টি ডোজ নেওয়া থাকলেই হল।

ফলে যা পরিস্থিতি তাতে থাইল্যান্ডে ঘোরা এখন ২টি ডোজ থাকলেই সম্ভব। প্রাথমিকভাবে ১০টি দেশকে এই কোয়ারেন্টিন মুক্ত সুযোগ দিতে চলেছে থাইল্যান্ড। তবে সেই ১০টি দেশ কি কি বা সেই তালিকায় ভারত আছে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।

থাই প্রধানমন্ত্রী এটাও জানিয়ে দিয়েছেন যে বাকি দেশ থেকেও পর্যটকেরা আসতে পারবেন, তবে তাঁদের থাইল্যান্ডে প্রবেশের পর কোয়ারেন্টিনে থাকার নিয়ম মানতে হবে। যা পর্যটকদের সেভাবে উৎসাহ দিচ্ছেনা। কারণ বেড়াতে গিয়ে অতগুলো দিন কোয়ারেন্টিনে নষ্ট করার সময় অনেকের হাতেই থাকেনা।

সেক্ষেত্রে অনেক পর্যটকই চাইছেন করোনা টিকার ২টি ডোজ থাকলে আর কোয়ারেন্টিনে থাকার নিয়ম রাখার প্রয়োজন কারও ক্ষেত্রেই থাকার দরকার নেই। থাইল্যান্ডের কোয়ারেন্টিন বিহীন দেশের তালিকায় ভারত থাকলে কিন্তু সেখানে পর্যটকের ভিড় বাড়বে এটা মেনে নিচ্ছেন অনেকেই। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button