National

খুলে নেওয়া হল রোগী দেখতে যাওয়া চিকিৎসকের সব পোশাক, তোলা হল ছবিও

গিয়েছিলেন রোগী দেখতে। কিন্তু ফিরলেন এক তিক্ততম অভিজ্ঞতা নিয়ে। রোগী দেখতে যেতেই তাঁকে সব পোশাক খুলে ফেলতে বাধ্য করা হয় বলে দাবি চিকিৎসকের।

তিনি তখন সঞ্চেতি হৃদয়ালয়ে রোগী দেখছিলেন। বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ হিসাবে তাঁর সুনাম রয়েছে। রোগী দেখার সময় তাঁর কাছে একটি ফোন আসে। তাঁকে ফোনের ওপার থেকে একজনের নাম বলা হয়, যাঁকে ওই চিকিৎসক চেনেন। তাঁর নাম করে ওপার থেকে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে অনুরোধ করা হয় তিনি যদি একজন রোগীকে বাড়িতে দেখতে আসেন।

এও জানানো হয় যে ওই ক্যানসার আক্রান্ত রোগী এতটাই অসুস্থ যে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার উপায় নেই। পরিচিত কারও নাম করে ফোন। তাই আর না করেননি ওই চিকিৎসক। তিনি হাজির হন পাঠানো ঠিকানায়। কিন্তু তারপরই আসল কাণ্ড শুরু হয়।

সৌরভ সঞ্চেতি নামে বছর ৩৭-এর ওই হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ জানান ঠিকানায় পৌঁছনোর পর জনা দশেক যুবক তাঁকে ঘিরে নেয়। তারপর ছুরি ধরে রেখে তাঁর পরনের সব পোশাক খুলে নেয় তারা।

ওই অবস্থায় চিকিৎসকের ছবিও তোলে। তারপর তা ভাইরাল করে দেওয়ার ভয় দেখায়। ওই পোশাকহীন অবস্থায় তাঁকে কাছের একটি মাঠে নিয়ে যাওয়া হয়।


সেখানে একটি গাড়িতে আরও কয়েকজন এসে হুমকি দেয় শুধু তাঁর ছবি ভাইরাল করে দেওয়াই নয়, তাঁর পরিবারের সদস্যদেরও ক্ষতি করে দেবে তারা। তবে ২০ লক্ষ টাকা দিয়ে দিলে আর কিছু করবেনা।

ওই চিকিৎসক ওখান থেকেই এক বন্ধুকে ফোন করে ৮ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা যোগাড় করে ওই যুবকদের দেন। তারপর তাঁকে ছেড়েও দেওয়া হয়।

এটা ঘটে গত ১২ অক্টোবর। ১৮ অক্টোবর ফের ওই চিকিৎসকের কাছে তাঁর হাসপাতালে হাজির হয় ওই যুবকদের ১ জন। চাহিদামত ২০ লক্ষ টাকার বাকি টাকাটা চায় তাঁর কাছে।

কিন্তু এবার শক্ত হাতে তার প্রতিবাদ করে চিকিৎসক জানিয়ে দেন তিনি ১ টাকাও আর দেবেন না। পুলিশেও খবর দেন ওই চিকিৎসক। পুলিশ ঘটনার কথা জেনে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়। মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ৫ জনকে পাকড়াও করে। বাকিদের খোঁজ চলছে। ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের বুলধানা শহরে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button