National

সুইমিং পুলে স্নানে নেমে তরুণ অধ্যাপকের কী করে এমনটা হল বুঝতে পারছেন না কেউ

তরুণ অধ্যাপক তিনি। তাও দেশের অন্যতম সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আইআইটি-র। তিনি যখন সুইমিং পুলে নামেন তখন সেখানে ২৮ জন স্নান করছিলেন।

পড়াশোনায় ছিলেন তুখোড়। কেরিয়ারে উত্থানও খুব দ্রুত। আইআইটি ধানবাদে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর হিসাবে পড়াতেন। সকালে তাঁর কয়েকজন সহকর্মীর সঙ্গে হাজির হন তাঁর ক্যাম্পাসের সুইমিং পুলে।

সুইমিং পুল সম্বন্ধে সকলের ধারনা পরিস্কার। এটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়। জল হয় অগভীর। তবে অনেক সুইমিং পুলে একদিকে কিছুটা গভীর করা হয় জল। অন্যদিকে দাঁড়িয়েই স্নান করা যায়।

অধ্যাপক যশবন্ত গুজালা সুইমিং পুলে নামেন ডাইভ দিয়ে। তিনি নিজে যথেষ্ট ভাল সাঁতারু। ফলে তাঁর গভীর জলের দিকটাই ছিল পছন্দের। সেখানে নিশ্চিন্তে ডাইভ দেওয়া যায়। ভাল সাঁতার জানা সকলেই সেদিকটাই পছন্দ করেন।

কিন্তু জলে ডাইভ দেওয়ার পর তিনি আর উঠছিলেন না। সুইমিং পুলে তখন ২৮ জন স্নান করছিলেন। সুইমিং পুলের স্বচ্ছ জলে জলের তলায় স্থির থাকতে দেখা যায় যশবন্তকে। দ্রুত যশবন্তকে বাকিরা উপরে তুলে আনেন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।


সবে ১ বছর হল বিয়ে করেছিলেন যশবন্ত। দুর্দান্ত ভবিষ্যৎ ছিল তাঁর। ভাল সাঁতার জানা সত্ত্বেও কীভাবে তিনি এমন আচমকা সুইমিং পুলে ডুবে যেতে পারেন তা কিছুতেই মাথায় ঢুকছে না কারও।

বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। সুইমিং পুলে সাধারণত ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকে। তাও আর ২৮ জন যেখানে স্নান করছিলেন সেখানে! — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button