National

বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে হাতে লিখে সেনাবাহিনীর প্রশংসা, হতাশ করল না সেনাও

বর ব্যাঙ্কের কর্মচারি, কনে তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী। তাঁদের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে উঠে এল সেনাবাহিনীর প্রশংসা। তাও হাতে লেখা। সব দেখে উচ্ছ্বসিত সেনাও।

তাঁরা আছেন তাই সকলে নিশ্চিন্তে ঘুমোতে যেতে পারেন। সুরক্ষিত থাকেন। দেশবাসী নিজের পছন্দের মানুষটার সঙ্গে আনন্দে জীবন কাটাতে পারেন। আর সেনাবাহিনী আছে বলেই তাঁরা ২ জনে আনন্দে বিয়ে করতে পারছেন।

তাঁদের এই বিশেষ দিনে সেনাবাহিনীকেও আমন্ত্রণ রইল। বিয়ের নিমন্ত্রণ পত্রে একথাগুলো হাতে লেখা ছিল। বর ব্যাঙ্কের আধিকারিক, কনে তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী।


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

তাঁদের বিয়েতে তাঁরা তাঁদের নিমন্ত্রণপত্রে হাতে লিখে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে ভূয়সী প্রশংসায় ভরিয়ে দেন। ভারতে কতই তো বিয়ে হচ্ছে। কিন্তু এই নিমন্ত্রণপত্র ভারতীয় সেনাবাহিনীকে আপ্লুত করেছে।

তাই ভারতীয় সেনাও হতাশ করেনি। নতুন জীবন শুরু করতে চলা তরুণ তরুণীকে তারা তাদের স্টেশনে ডেকে ফুলের তোড়া ও স্মারক দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়।

কেরালার পাংগোডে হওয়া এই বিবাহের নিমন্ত্রণপত্রটি সোশ্যাল মিডিয়ায় বর রাহুলকে ট্যাগ করে সেনার তরফেও রাহুল ও কার্তিকার বিয়েতে তাদের শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। সঙ্গে লেখা আছে কেউ সেনা হন বা না হোন, প্রত্যেকেরই দেশের প্রতি কর্তব্য রয়েছে।

দেশকে আরও সমৃদ্ধ করে তুলতে সকলের যোগদান আবশ্যিক। সেনারও অস্তিত্ব রয়েছে কারণ দেশের মানুষ তাদের পাশে আছেন।

পাংগোডের সেনা ছাউনিতে কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার ললিত শর্মা এই নব দম্পতিকে শুভেচ্ছায় ভরিয়ে দেন। তাঁদের সঙ্গে বেশ কিছুটা সময় কাটান। কথা বলেন।

একটি সাধারণ বিয়েতে দাম্পত্যজীবন শুরু করতে চলা ২ তরুণ তরুণীর সেনাবাহিনীর কথা মনে রেখে নিমন্ত্রণপত্রে এই কয়েক কলম লেখা ভারতীয় সেনার মন জয় করে নিয়েছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *