National

সাংসদের বাড়ির দরজায় কৃষকদের হলুদ বিপ্লব

কৃষক বিক্ষোভের মুখে পড়লেন এক সাংসদ। তাঁর বাড়ির সামনে সম্প্রতি হলুদ বিপ্লবে শামিল হলেন একদল কৃষক। কথা না রাখার জের ভুগতে হল সাংসদকে।

২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনের সময় এলাকায় প্রচারে বেরিয়ে একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি। ভোটেও জেতেন। আর এ দেশে এমন উদাহরণের ছড়াছড়ি যে ভোটে জেতার পর নেতারা ভোটে দেওয়া প্রতিশ্রুতির কথা বেমালুম ভুলে যান। ফের তেমনই এক উদাহরণ সামনে এল। যার জের ভুগতে হল সাংসদকে।

তেলেঙ্গানার নিজামাবাদ লোকসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে জিতে সাংসদ হয়েছিলেন বিজেপির ধর্মপুরী অরবিন্দ। ভোটের আগে তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন এখানকার হলুদ চাষিদের জন্য একটি হলুদ বোর্ড তৈরি করে দেবেন। আর ভোটে জিতলে তা যে তিনি ৫ দিনের মধ্যে করে দেবেন তাও একটি নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্প পেপারে সই করে জানান অরবিন্দ।

কিন্তু ভোট কাটার পর ৩ বছর কেটে গেলেও সেই প্রতিশ্রুতি অরবিন্দ রক্ষা করেননি। তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন হলুদ ও লাল জোয়ারের ন্যূনতম ক্রয় মূল্য তিনি স্থির করে দেবেন ওই হলুদ বোর্ড তৈরি করে। কিন্তু সেটাও করেননি।

স্থানীয় হলুদ চাষিদের এ নিয়ে ক্ষোভ ছিলই। তা গত রবিবার আছড়ে পড়ে। তাঁরা হাজির হন সাংসদ অরবিন্দের বাড়ির সামনে। তারপর তাঁর প্রধান ফটকের সামনে উলঢাল করে তাঁদের উৎপাদিত হলুদ ঢেলে দেন।

সেই হলুদের স্তূপের সামনে দাঁড়িয়ে চাষিরা তাঁদের বিক্ষোভ দেখান। ভোটের আগে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করায় বেজায় চাপরে মুখে পড়তে হয় সাংসদকে।

তেলেঙ্গানার নিজামাবাদ এলাকা হলুদ চাষের জন্য বিখ্যাত। সেখানে ১ লক্ষের ওপর হলুদ চাষি রয়েছেন। তাঁরা জানিয়েছেন সাংসদ তাঁর কথা রাখেননি তো বটেই, গত ৩ বছরে তাঁদের জন্য ১ কোটি ৯২ লক্ষ টাকার একটা ফান্ড নিয়ে এসেছেন মাত্র। যা কৃষকদের মধ্যে ভাগ করলে কৃষক প্রতি ২০০ টাকা করেও হবেনা।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.