National

শনিবার সকালে সাদা হয়ে গেল উপত্যকা, মাইনাসে নামল পারদ

প্রবল তুষারপাত হল জম্মু কাশ্মীরের একটা বড় অংশে। শনিবার সকালে ঘুম ভেঙে সাদা উপত্যকা দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তুষারপাতে বন্ধ হয়েছে রাস্তা।

বর্ষা বিদায় নিতেই জম্মু কাশ্মীরে শীত এসে গেল। তুষারপাত শুরু হয়েছে পাহাড়ি এলাকায়। সমতলে বৃষ্টিও হচ্ছে। শনিবার সকালে তুষার সাদা উপত্যকা দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা।

সোনমার্গ, পহেলগাম, গুলমার্গ সহ বিভিন্ন জায়গায় রাতভর তুষারপাত হয়েছে। দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ানে ৪ থেকে ৫ ইঞ্চি পুরু বরফের স্তর পড়েছে। সাদা বরফে ঢেকে গেছে বাড়িঘর, গাছপালা, রাস্তাঘাট।

গুলমার্গে মাইনাস ১.৩ ডিগ্রি তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে। কনকনে ঠান্ডায় জবুথবু হয়ে গেছে পুরো এলাকা। মাইনাসের দরজায় পৌঁছে গেছে পহেলগামের পারদও। সেখানে শনিবার তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ০.১ ডিগ্রি। ফলে এখানেও মাইনাসে পারদ নামতে আর দেরি নেই বলেই মনে করা হচ্ছে।

কার্গিলে এই মরসুমের প্রথম তুষারপাত হল শনিবার। দ্রাস শহরেও প্রবল তুষারপাত হয়েছে। সেখানে বরফের ৫ ইঞ্চি পুরু স্তর তৈরি হয়েছে। অন্যদিকে শ্রীনগরে তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৭.৩ ডিগ্রি।

শনিবার গোটা উপত্যকা জুড়েই পারদ পতন হয়েছে। ফলে সেখানে ক্রমশ প্রবল ঠান্ডা থাবা বসাচ্ছে। অক্টোবরেই সাদা বরফের স্তর ক্রমশ পুরু হচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়।

এদিকে প্রবল তুষারপাতের জের পড়েছে বিভিন্ন সড়কপথে। অনেক রাস্তাতেই বরফের স্তর জমেছে। বন্ধ হয়ে গেছে জম্মু-শ্রীনগর হাইওয়েও।

এই রাস্তা অবশ্য বরফের জন্য নয় বরং বন্ধ হয়েছে ধস নেমে। রামবান এলাকায় পাহাড়ের গা বেয়ে তীব্র গতিতে নেমে এসেছে একের পর এক ছোট বড় পাথর। যা ছিটকে এসে পড়েছে রাস্তায়। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button