National

কিডনি, লিভার বিক্রি আছে, হন্যে হয়ে ক্রেতা খুঁজছেন প্রৌঢ়

তিনি কিডনি ও লিভার বিক্রি করতে প্রস্তুত। চাই একজন ক্রেতা। কেউ চাইলেই ফোন নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন। এমনই আর্তি নিয়ে ঘুরছেন এক প্রৌঢ়।

করোনার আগে রাস্তায় গান করে উপার্জন করতেন তিনি। তাও মন্দ হত না। দিনে ৭০০ টাকার মত রাস্তায় গান গেয়ে পকেটে চলেই আসত। তাই দিয়ে তাঁর চলে যেত দিব্যি।

স্ত্রী মারা গেছেন। ছেলে জেলে। মেয়ে একজনের সঙ্গে বাড়ি থেকে পালিয়েছে। তাঁর কোমরের কাছ থেকে কিছুটা পক্ষাঘাতগ্রস্ত। একটি হাত নাড়তেও সমস্যা। তবু তিনি গান গেয়ে উপার্জন করতেন।

একটি গাড়ি রয়েছে যাতে করে বিশেষভাবে সক্ষমরা এক জায়গা থেকে অন্যত্র যেতে পারেন। সেটিই এখন তাঁর সংসার। ওটিতেই রাতে ঘুমোন। সারাদিন ওতেই কাটে।

করোনার আগে চলে গেলেও করোনায় রোজগার বন্ধ হয়ে গিয়েছে। কে আর তাঁর গান শুনে পয়সা দেবেন? কেরালার তিরুবনন্তপুরমের বাসিন্দা প্রৌঢ় ৫৯ বছরের রোনাল্ডের রোজগার প্রায় শূন্য।

রোনাল্ড জানান, এমনও দিন গেছে যে তিনি একটি নির্মীয়মাণ বাড়ির সামনে গিয়ে দাঁড়াতেন প্রতিদিন। সেখানে শ্রমিকরা দুপুরের খাবার খাওয়ার পর প্যাকেটগুলো এক জায়গায় ফেলতেন। সেখান থেকে প্যাকেট কুড়িয়ে তার মধ্যে থাকা উচ্ছিষ্ট খেয়ে আহার সেরেছেন রোনাল্ড।

এখন তিনি চাইছেন থাকার জন্য একটা ছোট ঘর। দুবেলা একটু খাবারের সংস্থান। ছেলেকে জেল থেকে বার করার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ। আর তাঁর ভাইপোর শারীরিক সমস্যা দূর করতে কিছু অর্থ।

এই লক্ষ্য পূরণের জন্য রোনাল্ড স্থির করেছেন নিজের কিডনি ও লিভার বিক্রি করে দেবেন। এজন্য নিজের ওই গাড়িতেই পোস্টার টাঙিয়ে রাস্তায় রাস্তায় হন্যে হয়ে ঘুরছেন তিনি। যদি কেউ তাঁর সঙ্গে ওই বিজ্ঞাপন দেখে যোগাযোগ করেন। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More
Back to top button