National

পশ্চিমবঙ্গকে সতর্ক করল স্বাস্থ্যমন্ত্রক

পশ্চিমবঙ্গ সহ দেশের ৪ রাজ্যকে সতর্ক করল স্বাস্থ্যমন্ত্রক। যার মধ্যে রয়েছে কেরালা, মহারাষ্ট্র ও ছত্তিসগড়ের নাম। করোনার উর্ধ্বগতি নিয়ে সতর্ক করেছে মন্ত্রক।

নয়াদিল্লি : ভারতে এখন করোনা নিম্নমুখী। এ রাজ্যেও সেই একই প্রবণতা তৈরি হয়েছে। মৃত্যু এদিন দীর্ঘদিন পর নেমেছে ২০-র নিচে। দৈনিক সংক্রমণ নেমেছে ১ হাজারের নিচে।

যদিও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক তারপরেও সতর্ক করল এ রাজ্যকে। সতর্ক করেছে দেশের আরও ৩টি রাজ্যকে। যার মধ্যে রয়েছে কেরালা, মহারাষ্ট্র ও ছত্তিসগড়ের নাম।

স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে এই ৪টি রাজ্যে দেশের মধ্যে করোনা সংক্রমণে একটা ঊর্ধ্বগতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। তাই করোনা প্রতিরোধে আরও কঠোর হতে বলা হয়েছে এই রাজ্যগুলিকে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে কেরালা, মহারাষ্ট্র, ছত্তিসগড় ও পশ্চিমবঙ্গ এই ৪ রাজ্যেই দেশের ৫৯ শতাংশ অ্যাকটিভ করোনা রোগী রয়েছেন।


যারমধ্যে ২৮.৬১ শতাংশ রয়েছেন কেরালায়, ২২.৭৯ শতাংশ রয়েছেন মহারাষ্ট্রে, ৩.৯৯ শতাংশ রয়েছে ছত্তিসগড়ে এবং ৩.৮৯ শতাংশ রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গে।

এই ৪ রাজ্যকে আরও কড়া নজরদারি রাখা এবং করোনা রুখতে প্রয়োজনীয় কড়া ব্যবস্থা নিতে পরামর্শ দিয়েছে মন্ত্রক। সেইসঙ্গে তাদের সতর্ক করা হয়েছে নতুন আসা করোনার স্ট্রেন নিয়েও।

যা ব্রিটেনে পাওয়া যাওয়ার পর এখন অনেক দেশেই ছড়িয়েছে। এমনকি ভারতেও তার খোঁজ মিলেছে। আর ভারতে ওই নতুন স্ট্রেনের করোনা সংক্রমণ বাড়তেও শুরু করেছে।

এই ৪ রাজ্যে ক্রমশ পরীক্ষা কমছে বলেও জানিয়েছে মন্ত্রক। টেস্ট কমানো নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে তারা। টেস্ট করা, ট্র্যাক করা এবং ট্রিট করার পদ্ধতি গ্রহণ করতে পরামর্শ দিয়েছে তারা। অর্থাৎ পরীক্ষা করে খুঁজে বার করে চিকিৎসার বন্দোবস্ত করা।

এই পদ্ধতি অবলম্বনে জোর দিয়ে এই ৪ রাজ্যে করোনা অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যায় লাগাম দিতে বলা হয়েছে মন্ত্রকের তরফে।

দেশে টিকাকরণের পদ্ধতি চালু হতে চলেছে। এই সময়ে জেলাস্তরে কড়া নজর রাখায় জোর দিতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া রাজ্যগুলিতে মাস্ক পরায় কড়াকড়ি করা থেকে শুরু করে করোনা রুখতে দেওয়া নিয়মাবলী পালনে জোর দিতে বলা হয়েছে মন্ত্রকের তরফে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button