Saturday , September 21 2019
Narendra Modi
দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ, ছবি - আইএএনএস

জ্ঞানত অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে কিছু করব না, আশ্বস্ত করলেন নরেন্দ্র মোদী

দেশ জুড়ে বিজেপি সাইক্লোনের পর অবশেষে সন্ধেবেলা দিল্লিতে বিজেপির প্রধান কার্যালয়ের সামনে জড়ো হওয়া কর্মী সমর্থকদের সামনে বক্তব্য রাখলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে দেশবাসীকে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানান। জানান ২০১৪-তে তিনি যখন ক্ষমতায় আসেন তখন তাঁর ওপর ভরসা করে মানুষ ভোট দিয়েছিলেন। ২০১৯-এ কিন্তু তাঁকে মানুষ চিনে ভোট দিয়েছেন। আর সেক্ষেত্রে আরও বেশি ভোট দিয়েছেন। তাই তাঁর দায়িত্বও অনেক বাড়ল। এদিন নরেন্দ্র মোদী প্রায় শপথের সুরেই সকলকে জানান, জ্ঞানত তিনি কোনও অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে কোনও পদক্ষেপ করবেন না। কাজ করতে গেলে ভুল হতে পারে। সেজন্য মানুষ তাঁর সমালোচনাও করতে পারেন। কিন্তু তিনি নিজে জেনে বুঝে ভুল করবেন না। নিজের আখের গোছাতে কিছু করবেন না। সেইসঙ্গে মোদী আরও জানান, তাঁকে এর আগে কে কী বলেছেন তা তিনি মনে রাখতে চান না। সামনের দিকে তাকাতে চান। বিরোধীদের সঙ্গে নিয়ে চলতে চান। তাঁদের এই অসামান্য জয় দেশবাসীর জয় বলে জানান মোদী। দেশবাসীকে শ্রীকৃষ্ণের সঙ্গে তুলনা করে বলেন, শ্রীকৃষ্ণ হস্তিনাপুরকে বাঁচাতে পাণ্ডবদের সাহায্য করেছিলেন, আর দেশবাসী সে কাজ করেছেন ভারতের জন্য।

নরেন্দ্র মোদী কোনও বিশেষ রাজ্যে তাঁদের অবস্থা বা ফলাফল নিয়ে কিছু বলেননি। বরং মোদী জানান, তিনি বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এতটাই ব্যস্ত ছিলেন যে গুরুত্ব দিয়ে কোথায় বিজেপি কী করল তাও জানার সুযোগ পাননি। রাতে বসে সেসব ভাল করে খতিয়ে দেখবেন তিনি। সেখানে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ কিন্তু সরাসরি চন্দ্রবাবু নাইডুর নাম করে কটাক্ষ করেন। চন্দ্রবাবু নাইডুর ভরাডুবিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, চন্দ্রবাবু যদি বিভিন্ন রাজ্যে না ঘুরে সেই লড়াইটা নিজের ভোট বাড়ানোর দিকে দিতেন তাহলে তাঁকে এই পরাজয়ের সম্মুখীন হতে হতনা। প্রসঙ্গত অন্ধ্রপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনে ভরাডুবি হয়েছে চন্দ্রবাবুর দল তেলেগু দেশমের। ওখানে সরকার গড়তে চলেছেন ওয়াইএসআর কংগ্রেস প্রধান জগনমোহন রেড্ডি।

বৃহস্পতিবার অমিত শাহ-র বক্তব্যে বড়সড় জায়গা পেয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। পশ্চিমবঙ্গের ফলাফল নিয়ে রীতিমত উচ্ছ্বসিত ছিলেন অমিত শাহ। বাংলায় যে বিজেপি স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে তাও এদিন পরিস্কার করে দেন তিনি। পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন ২০২১ সালে। সেই ভোটে ক্ষমতায় আসার লড়াই যে বিজেপি এবার অনেকটা খুলে ও আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে লড়বে তাও এদিন অমিত শাহের বক্তব্যের মধ্যে থেকে উঠে এসেছে। সেই সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গে তাঁদের এবারের জয় সহজ কাজ ছিলনা বলেই জানান তিনি। রাজ্যে তাঁদের যেসব দলীয় কর্মীর মৃত্যু হয়েছে তাঁদের প্রতিও এই মঞ্চ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *