Kolkata

পুলিশের সমালোচকদের বিরুদ্ধে নাম না করে সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী

রাজ্যের পুলিশের কাজের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুলিশকে নানা কথা বলার জন্য বিরোধীদেরও সমালোচনা করেন তিনি।

কলকাতা : করোনা আবহে ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কারদের তালিকায় পড়ে পুলিশও। করোনা আবহে নিজের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রায় ৮ হাজার পুলিশকর্মী এ রাজ্যে করোনার শিকার হয়েছেন। তবু পুলিশ তার কর্তব্যে অবিচল থেকেছে। নিজেদের কাজ চালিয়ে গেছে। একথা তুলে ধরে মঙ্গলবার করোনার সময় পুলিশের কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৭ হাজার ৯৬৩ জন পুলিশকর্মী করোনায় কাবু হয়েছেন ডিউটি করতে গিয়ে।


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

গত ১ সেপ্টেম্বর ছিল পুলিশ দিবস। দিনটি পালনের তোড়জোড়ও করা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে তা স্থগিত হয়। সেই পুলিশ দিবস পালিত হল মঙ্গলবার। রাজ্যের প্রতিটি জেলায় পুলিশ দিবস পালিত হয়। নবান্নে পুলিশ দিবসের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন রাজ্যের পুলিশের ২০ জন প্রয়াত করোনা যোদ্ধার পরিবারের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন তিনি। রাজ্য পুলিশ ও হোম গার্ডদের মাইনে বাড়ানোর কথাও জানান মুখ্যমন্ত্রী। সিভিক পুলিশ ও আশা কর্মীদের নানা সুযোগ বৃদ্ধির কথাও বলেন।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বিরোধীদের কড়া ভাষায় আক্রমণ করেছেন। নাম না করে তাঁর নিশানা যে ছিল বিজেপি তা মেনে নিচ্ছে রাজনৈতিক মহল। মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন যাঁরা পুলিশের বিরুদ্ধে নানা কথা বলছেন তাঁদের লজ্জা হওয়া উচিত। এদিন সমালোচনার সুর ছিল চড়া। প্রসঙ্গত বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বের তরফে একাধিকবার রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে সুর চড়ানো হয়েছে। পুলিশের কাজের প্রকাশ্যে সমালোচনা করেছেন তাঁরা।

দুর্গাপুজো নিয়ে একটি বিশেষ দলের আইটি সেল রটনা চালাচ্ছে বলে এদিন দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন দুর্গাপুজোর সময় নানা প্রতিবন্ধকতার কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু সরকার কিছুই জানেনা। তিনি পুলিশকে বলেন কোথা থেকে এই রটনা ছড়ানো হয়েছে তা খুঁজে বার করতে। তারপর যে বা যারা দায়ী তাদের চিহ্নিত করে তাদের কান ধরে ওঠবোস করাতে। বিষয়টি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষোভ এদিন তাঁর চড়া সুরেই প্রকাশ পেয়েছে।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button