Kolkata

রেকর্ড গড়ে মাধ্যমিকের প্রথম দশে ৬৬

Kolkata Newsমাধ্যমিকের ইতিহাসে এই প্রথম। বেনজির ভাবে এবার মাধ্যমিকে প্রথম দশটি স্থানে ৬৬ জন ছাত্রছাত্রী রয়েছেন। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের দাবি, এই নজির অদ্যাবধি মাধ্যমিকের রেকর্ডে নেই। ফলে ২০১৬-র মাধ্যমিক রেকর্ড গড়ল। এদিকে গত কয়েকবছর ধরেই মাধ্যমিকে জেলার জয়জয়কার। এবারও তার অন্যথা হয়নি। তবে কলকাতার ফলাফল এবার উল্লেখজনকভাবে খারাপ। প্রথম ১০-এ মাত্র দুজন কলকাতা থেকে। অর্থাৎ ৬৬ জনের মধ্যে কলকাতা থেকে মাত্র দুজনের ভাগ্যে শিকেয় ছিঁড়েছে।

এবার মাধ্যমিকে প্রথম হয়েছে কোচবিহারের মাথাভাঙা হাইস্কুলের সৌভিক বর্মণ। সৌভিকের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৩। এক নম্বর কম পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ৩ জন। দেবদত্তা পাল, ঘুটিয়া বাজার বিনোদিনী হাইস্কুল, রমিক দত্ত, দুবরাজপুর সারদা বিদ্যাপীঠ, তিতাস দুবে বাঁকুড়ার সিমলাপাল মঙ্গলময়ী বালিকা বিদ্যামন্দির। ৬৮১ নম্বর পেয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ২ জন। চাকদহ রামলাল অ্যাকাডেমির ছাত্র শুভ্রজিৎ মণ্ডল ও রামপুরহাট জিতেন্দ্রলাল বিদ্যাভবনের ছাত্র অনীক ঘোষ। ৬৮০ নম্বর পেয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে ৫ জন। বালুরঘাট হাইস্কুলের রত্নদ্বীপ ভট্টাচার্য বালুরঘাট হাইস্কুল, কাটোয়া কাশীরামদাস হাইস্কুলের কৌস্তুভ রায়, পূর্ব মেদিনীপুর জ্ঞানদীপ বিদ্যাপীঠের ছাত্র অনিকেশ মিশ্র, বালুরঘাট হাইস্কুলের রাজদীপ গঙ্গোপাধ্যায় এবং আলিপুরদুয়ার কামাখ্যাগুড়ি হাইস্কুলের তনুজা দাস। এছাড়া ৬৭৯ নম্বর পেয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছে ৯ জন, ৬৭৮ নম্বর পেয়ে ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে ২ জন, ৬৭৭ নম্বর পেয়ে সপ্তম স্থানে রয়েছে ৫ জন। ৬৭৬ নম্বর পেয়ে অষ্টম স্থানে রয়েছে ১০ জন, ৬৭৫ নম্বর পেয়ে নবম স্থানে রয়েছে ১৫ জন এবং ৬৭৪ নম্বর পেয়ে দশম স্থানে রয়েছে ১৪ জন ছাত্রছাত্রী।

কলকাতার যে দুজন প্রথম দশে জায়গা পেয়েছে তারা দুজনেই নবম স্থান অধিকার করেছে। একজন নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের শ্রেনাংশ চট্টোপাধ্যায় ও অন্যজন সারদা বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলের সৃজিতা দাস। এবারের মাধ্যমিকে পাশের হার ৮২ দশমিক ৭৪ শতাংশ। পাশের হারে সবচেয়ে এগিয়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা। আগামী বছরের মাধ্যমিকের দিনক্ষণও এদিন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে।

২০১৭-র মাধ্যমিক শুরু হবে ২২ ফেব্রুয়ারি। শেষ হবে ৩ মার্চ। পরীক্ষাসূচি হল এরকম- ২২ ফেব্রুয়ারি প্রথম ভাষা, ২৩ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় ভাষা, ২৫ ফেব্রুয়ারি ইতিহাস, ২৭ ফেব্রুয়ারি অঙ্ক, ২৮ ফেব্রুয়ারি ভূগোল, ১ মার্চ পদার্থ বিদ্যা, ২ মার্চ জীবন বিজ্ঞান এবং ৩ মার্চ ঐচ্ছিক বিষয়ের পরীক্ষা।


Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button