Health

চুলের হাজারো সমস্যার সমাধানে রিঠা-আমলা-শিকাকাই

একটা সময় কুন্তল পরিচর্যার কৃত্রিম প্রসাধনী ব্যবহারের চল ছিলনা। তখন মানুষ প্রকৃতির বুক থেকে উপাদান সংগ্রহ করে বানিয়ে নিতেন চুল ধোয়ার উপকরণ।

চুল উঠে যাচ্ছে গোছা গোছা? চুল তো গজাচ্ছেই না, উল্টে চওড়া হচ্ছে সিঁথি। উত্তর থেকে দক্ষিণ, পূর্ব থেকে পশ্চিম, যেখানেই যাও, সেখানেই এক অভিযোগ। চুল পড়ার সমস্যা মহামারির চেহারা নিয়েছে সব জায়গাতেই।

আর যেখানে যত বেশি দূষণ, যত জল খারাপ, সমস্যা সেখানে ততই প্রবল। তার ওপরে খাদ্যাভ্যাস, দুশ্চিন্তা, শরীরে নানা রোগ, ব্যবহার্য তেল, শ্যাম্পু, লোশন জাতীয় নানা রাসায়নিকেরও কুপ্রভাব রয়েছে।

একটা সময় কুন্তল পরিচর্যার এই সমস্ত কৃত্রিম প্রসাধনী ব্যবহারের চল ছিল না। তখন মানুষ প্রকৃতির বুক থেকে উপাদান সংগ্রহ করে বানিয়ে নিতেন চুল ধোয়ার উপকরণ।

রিঠা, আমলা আর শিকাকাইয়ের সংমিশ্রণে গড়ে তোলা ‘হেয়ার প্যাক’ যার মধ্যে অন্যতম। অকালে চুল পাকা (বংশগত বা পাকাপাকি পাক ধরা চুলের জন্য নয়), খুসকি বা চুল পড়ার সমস্যায় কার্যকরই ওষুধ এই প্রাকৃতিক হেয়ার প্যাক।


বাড়িতে সহজে বানানোও যায় এই প্যাক। সপ্তাহে ১-২ বার এই প্যাক ব্যবহার করলে চুলের নানা সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব। এবার আসা যাক কিভাবে এই প্যাক বানাতে হয় সেই প্রসঙ্গে।

উপকরণ (মাঝারি স্বাভাবিক ঘনত্বের চুলের জন্য) :

৭-৮টা রিঠা ফল, বাজার থেকে কিনে আনা আমলা ও শিকাকাইয়ের গুঁড়ো, আধখানা পাতিলেবু (চুলে খুস্কির সমস্যা থাকলে লেবুর ব্যবহার করবেন)

পদ্ধতি :

গ্যাসের আগুনে একটা পাত্র বসান। তাতে ২ কাপ মত জল গরম করুন। জল ফুটে উঠলে তাতে রিঠা ফলগুলো দিন। গরম জলে রিঠা নরম হয়ে এলে গ্যাস বন্ধ করুন। এবার জল ঠান্ডা হতে দিন। রিঠাগুলোকে ভালো করে জলের মধ্যে চটকান। দেখবেন, জলে ফেনা হয়ে যাচ্ছে। এবার রিঠার বীজগুলো জল থেকে বার করে নিন। আধ চামচ করে আমলা আর শিকাকাইয়ের গুঁড়ো ওই জলে মেশান ভালো করে।

পাতিলেবুর রস দিন জলে। এবার একটু একটু করে মাথায় ওই জল দিয়ে ঘষতে থাকুন। দেখবেন প্রচুর ফেনা হচ্ছে। ভালো করে মাথার তালু আর চুল ফেনাসহ মিশ্রণ দিয়ে ঘষুন। তারপর জল দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন। এতে মাথা একদম পরিস্কার হয়ে যাবে। আর, চুলের ঘনত্ব নিজেই অনুভব করবেন।

খেয়াল রাখবেন, হেয়ার প্যাকের মিশ্রণ যদি বেঁচে যায়, তাহলে সেটা আর পরে ব্যবহার করবেন না। কারণ, ফেলে রাখলে বা ফ্রিজে রাখলে তার গুনাগুণ নষ্ট হয়ে যায়। খুব বেশি হলে ১ দিন পর অন্য কেউ সেটা ব্যবহার করতে পারেন। রিঠার শ্যাম্পুর পর চুলে কোনওরকম কন্ডিশনার বা লোশন লাগাবেন না। এতে এই প্রকৃতির দান থেকে তৈরি শ্যাম্পুর গুনাগুণ নষ্ট হয়ে যাবে। শ্যাম্পু ধোওয়া জল চোখে গেলে মারাত্মক চোখ জ্বালা করে। তাই চোখ বুজে মাথা ধোবেন।

রিঠা-আমলা-শিকাকইয়ের শ্যাম্পু করার পর মোটা দাঁড়ার চিরুনি দিয়ে ধীরে ধীরে চুল ছাড়াবেন। রিঠার কারণে চুল রুক্ষ হতে পারে। তাই রাতে হট অয়েল মাথায় ম্যাসাজ করে নিতে পারেন। একেকজনের চুলের প্রকৃতি একেকরকম। অনেকের নানারকম চুলকানি, ফোঁড়া, অ্যালার্জির সমস্যা থাকে। তাঁরা অবশ্য এসব ব্যবহারের আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নেবেন।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button