Entertainment

খুলে গেল সিনেমা হল

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক আগেই জানিয়েছিল ১৫ অক্টোবর থেকে খোলা যেতে পারে সিনেমা হল, মাল্টিপ্লেক্স। তবে যাবতীয় সতর্ক বিধি মেনেই খুলতে হবে। সেইমত এদিন থেকে খুলল সিনেমা হল।

কলকাতা ও নয়াদিল্লি : করোনা এ দেশে বাড়তে থাকার পর গত মার্চ মাসে অন্য অনেক কিছুর সঙ্গে বন্ধ হয়ে যায় সিনেমা হল। সারা দেশে লকডাউন শুরু হয়। মানুষের চিন্তা বাড়তে থাকে। বিনোদন স্তব্ধ হয়ে যায়।

সিনেমা হল থেকে মাল্টিপ্লেক্স সর্বত্র সিনেমার পর্দা ঢাকা পড়ে যায়। বন্ধ হয়ে যায় প্রোজেক্টরের আলো। একা সারিসারি সিটগুলো অন্ধকারে ডুবে যায়।

তারপর থেকে এই করোনা আবহে শুধু অপেক্ষাতেই দিন কেটেছে বিনোদনের এই মাধ্যমের। অবশেষে প্রতীক্ষার অবসান হল। খুলে গেল সিনেমা হল, মাল্টিপ্লেক্স। এদিন কলকাতার বেশ কয়েকটি মাল্টিপ্লেক্সে শো চালু হল। প্রথম দিনেই অনেকে হাজিরও হলেন সিনেমা দেখতে।

কেন্দ্রীয় সরকারি গাইডলাইন অনুযায়ী অবশ্য সিনেমা হল খুলতে হলে মাত্র ৫০ শতাংশ আসনের টিকিটই বিক্রি করা যাবে। ওই ৫০ শতাংশ আসনেই দর্শক বসে সিনেমা দেখতে পারবেন।

সিনেমা হলে ঢোকার আগে মুখে মাস্ক থাকা জরুরি। প্রত্যেককে থার্মাল গান দিয়ে তাঁদের শরীরের তাপমাত্রা দেখার পরই প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।

কলকাতায় এদিন যে পর্দায় সিনেমা দেখানো শুরু হয়েছে সেখানে টিকিট বিক্রিতে জোর দেওয়া হয়েছে অনলাইনে। কাগজের টিকিট বন্ধ করে আপাতত অনলাইনে টিকিট ও টিকিটের দাম অনলাইনে মেটানোর পদ্ধতির পথেই হাঁটছে অনেক সিনেমা হল, মাল্টিপ্লেক্স।

অনেক সিনেমা হল অবশ্য এদিন পরীক্ষামূলকভাবে হল খুললেও বাণিজ্যিকভাবে হল চালু হবে কদিন বাদে। দেশের অন্য শহরেও খুলে যাচ্ছে সিনেমা হল, মাল্টিপ্লেক্স।

দিল্লির বেশ কিছু হলে এদিন মক টেস্ট হয়েছে। নতুন পরিস্থিতিতে নতুন নিয়ম মেনে যাতে সবকিছু সুন্দরভাবে পরিচালনায় হল কর্তৃপক্ষ ও কর্মচারিরা অভ্যস্ত হতে পারেন সেজন্য মক শো হয়েছে অনেক জায়গায়।

দেশে সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্স খোলায় খুশি দর্শকরা। করোনা আবহে চিন্তা ও এক দমবন্ধ পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে বিনোদনই ভরসা। মনের মেঘগুলো কাটিয়ে মনে একটা নির্মল বাতাস বইয়ে দিতে বিনোদনের জুড়ি নেই। সেই সুযোগ এবার হাতে এল সকলের। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

News Desk

নীলকণ্ঠে যে খবর প্রতিদিন পরিবেশন করা হচ্ছে তা একটি সম্মিলিত কর্মযজ্ঞ। পাঠক পাঠিকার কাছে সঠিক ও তথ্যপূর্ণ খবর পৌঁছে দেওয়ার দায়বদ্ধতা থেকে নীলকণ্ঠের একাধিক বিভাগ প্রতিনিয়ত কাজ করে চলেছে। সাংবাদিকরা খবর সংগ্রহ করছেন। সেই খবর নিউজ ডেস্কে কর্মরতরা ভাষা দিয়ে সাজিয়ে দিচ্ছেন। খবরটিকে সুপাঠ্য করে তুলছেন তাঁরা। রাস্তায় ঘুরে স্পট থেকে ছবি তুলে আনছেন চিত্রগ্রাহকরা। সেই ছবি প্রাসঙ্গিক খবরের সঙ্গে ব্যবহার হচ্ছে। যা নিখুঁতভাবে পরিবেশিত হচ্ছে ফোটো এডিটিং বিভাগে কর্মরত ফোটো এডিটরদের পরিশ্রমের মধ্যে দিয়ে। নীলকণ্ঠ.in-এর খবর, আর্টিকেল ও ছবি সংস্থার প্রধান সম্পাদক কামাখ্যাপ্রসাদ লাহার দ্বারা নিখুঁত ভাবে যাচাই করবার পরই প্রকাশিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *