Sports

ব্রাজিলকে হারিয়ে কোপা আর্জেন্টিনার, দেশের হয়ে প্রথম সাফল্য মেসি-র

কোপা আমেরিকার টানটান ফাইনালে ব্রাজিলকে হারিয়ে খেতাব জিতে নিল মেসির আর্জেন্টিনা। ২৮ বছরের খরা কাটিয়ে এল সাফল্য।

কোপা আমেরিকার ফাইনালে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার দ্বৈরথে শেষ হাসি হাসল মেসির নীল সাদা জার্সির আর্জেন্টিনা। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার লড়াই মানেই কলকাতা ২ ভাগে ভাগ হয়ে যাওয়া। মোহনবাগান বনাম ইস্টবেঙ্গলের মতই টানটান এই লড়াই।

ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরো-র মারাকানা স্টেডিয়ামে সেই টানটান ম্যাচে ২২ মিনিটের মাথায় আর্জেন্টিনার উইঙ্গার রডরিগো ডে পল একটি বাড়ানো পাসে বল নিয়ে ছুটে ব্রাজিলের গোলকিপার এডারসনকে পরাস্ত করে জালে বল জড়িয়ে দেন।

উল্লাসে মেতে ওঠে আর্জেন্টিনা। যদিও একটা মাত্র গোল যথেষ্ট ছিলনা। কিন্তু এদিন মেসি একটি সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন। ফলে ২ গোলে এগোনোর সুযোগ হাতছাড়া হয়।

ব্রাজিল তাদের ঘরের মাঠে হারতে জানেনা। একটা গোল খাওয়ার পর খোঁচা খাওয়া বাঘের মত ঝাঁপিয়ে পড়ে তারা। কিন্তু তাতেও আর্জেন্টিনার গোলমুখ খুলে উঠতে পারেনি ব্রাজিল।

খেলার শেষ বাঁশি বাজা পর্যন্ত ২২ মিনিটের মাথায় সেই ১টি গোলই থেকে যায়। বাঁশি বাজতেই আনন্দে মেতে ওঠেন আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়েরা।

২৮ বছর পর কোনও আন্তর্জাতিক খেতাব এল তাদের ঘরে। ১৯৯৩ সালে গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা আর্জেন্টিনাকে কোপা এনে দিয়েছিলেন মেক্সিকোকে হারিয়ে। ২-১ গোলে জেতে তারা। তারপর আর্জেন্টিনা দলে মহাতারকা মেসির উপস্থিতিও তাদের কোনও কাপ এনে দিতে পারেনি।

অন্যদিকে আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ তো নয়ই, এমনকি ফুটবলের এতবড় নক্ষত্র হয়েও দেশকে কোপা দিতে পারেননি মেসি। সেই খরা অবশেষে কাটল। মেসি ছুঁলেন চ্যাম্পিয়নের ট্রফি।

ব্রাজিল তাদের নিজের মাঠে প্রায় ৭ বছর হতে চলল একটাও ম্যাচ হারেনি। নিজেদের মাঠে তারা গত ৫ বার বিভিন্ন প্রতিযোগিতা থেকে জয় ছিনিয়ে ট্রফি জিতেছে। সেখানে ঘরের মাঠে এ পরাজয়ে ভেঙে পড়েছে সাম্বার দেশ।

ব্রাজিলের তারকা নেইমার ফের ব্যর্থ হলেন দেশকে ট্রফি এনে দিতে। মেসির মতই তাঁর হাতে এতদিন ওঠেনি কোনও ট্রফি। এদিন মেসির সেই গ্লানি মুছল। নেইমারের কবে ভাগ্য সহায় হয় সেদিকেই তাকিয়ে ব্রাজিল।

Show More

News Desk

নীলকণ্ঠে যে খবর প্রতিদিন পরিবেশন করা হচ্ছে তা একটি সম্মিলিত কর্মযজ্ঞ। পাঠক পাঠিকার কাছে সঠিক ও তথ্যপূর্ণ খবর পৌঁছে দেওয়ার দায়বদ্ধতা থেকে নীলকণ্ঠের একাধিক বিভাগ প্রতিনিয়ত কাজ করে চলেছে। সাংবাদিকরা খবর সংগ্রহ করছেন। সেই খবর নিউজ ডেস্কে কর্মরতরা ভাষা দিয়ে সাজিয়ে দিচ্ছেন। খবরটিকে সুপাঠ্য করে তুলছেন তাঁরা। রাস্তায় ঘুরে স্পট থেকে ছবি তুলে আনছেন চিত্রগ্রাহকরা। সেই ছবি প্রাসঙ্গিক খবরের সঙ্গে ব্যবহার হচ্ছে। যা নিখুঁতভাবে পরিবেশিত হচ্ছে ফোটো এডিটিং বিভাগে কর্মরত ফোটো এডিটরদের পরিশ্রমের মধ্যে দিয়ে। নীলকণ্ঠ.in-এর খবর, আর্টিকেল ও ছবি সংস্থার প্রধান সম্পাদক কামাখ্যাপ্রসাদ লাহার দ্বারা নিখুঁত ভাবে যাচাই করবার পরই প্রকাশিত হয়।
Back to top button