World

জলে লিয়াওনিং, আকাশে এফসি-৩১, দক্ষিণ চিন সাগরে ফের চিনের ‘দাদাগিরি’

পঞ্চম জেনারেশনের স্টেলথ ফাইটার এফসি-৩১ গিরফ্যালকন যুদ্ধ বিমানের পরীক্ষামূলক উড়ান করল চিন। উড়ান সফলও হয়েছে। বিশ্বের ধারণা ভাল যুদ্ধ বিমান কেবল পাশ্চাত্যেই তৈরি হওয়া সম্ভব, সেই ধারণা ভেঙে এখন প্রাচ্যেও যে তেমন কিছু তৈরি সম্ভব তা প্রমাণে উঠে পড়ে লেগেছে চিন। এদিন দক্ষিণ চিন সাগরেও চিনের একমাত্র এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার জাহাজ লিয়াওনিং-কে দেখেতে পাওয়া গেছে। যা আমেরিকা সহ অন্যান্য দেশের কপালে ভাঁজ ফেলেছে। দক্ষিণ চিন সাগরের দখলদারি নিয়ে চিনের সঙ্গে মার্কিন সংঘাত অনেকেই জানেন। কিছুদিন আগে রণতরী পাঠিয়ে সেখানে চিনা আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টায় পাল্টা হুঁশিয়ারি ছুঁড়ে দিয়েছিল আমেরিকা। যার জেরে দুই দেশের সম্পর্কও তলানিতে ঠেকে। প্রকাশ্যেই দক্ষিণ চিন সাগরের ওপর দখলদারি নিয়ে দুই দেশের বাকযুদ্ধ লেগে যায়। কিছুদিন আগে আমেরিকার একটি যন্ত্রচালিত ড্রোন ডুবোজাহাজকে ধরে ফেলে চিন। তা আটকেও রাখা হয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ছেড়ে দেওয়ার পাত্র নন। তিনিও সদর্পে ঘোষণা করেন চিন তাঁদের জাহাজ চুরি করেছে। তাই তারা সেটা রেখে দিক। আমেরিকার ওটা আর দরকার নেই। যদিও পরে চিন আমেরিকাকে তা ফিরিয়ে দেয়। এদিন দক্ষিণ চিন সাগরে চিনা ‌যুদ্ধজাহাজের উপস্থিতি অবস্থাকে নতুন জটিলতার দিকে ঠেলে দিল। একই দিনে এফসি-৩১ এর মত উন্নত যুদ্ধবিমানেরও পরীক্ষা দক্ষিণ চিন সাগর নিয়ে উত্তেজনায় ঘৃতাহুতি বলেই মনে করছেন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞেরা।

 


Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button