National

বাদল অধিবেশন থেকে সাসপেন্ড তৃণমূল সাংসদ

বাদল অধিবেশন থেকে সাসপেন্ড করা হল এক তৃণমূল সাংসদকে। শুক্রবার সকালেই এই সিদ্ধান্তের কথা জানান রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম বেঙ্কাইয়া নাইডু।

পেগাসাস বিতর্কের আঁচ সংসদের বাদল অধিবেশনে পড়েছে। রাজ্যসভায় সেই পেগাসাস বিতর্ক নিয়ে বৃহস্পতিবার বক্তব্য রাখতে উঠেছিলেন কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বিষ্ণোই।

সে সময় তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন তাঁর হাত থেকে বক্তব্য লেখা কাগজ কেড়ে ছিঁড়ে ফেলে দেন। যা নিয়ে হৈ হট্টগোলের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। শান্তনু সেনের দিকে তেড়ে আসেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী।

বৃহস্পতিবার বিষয়টি সেখানে থামলেও শুক্রবার সকালে রাজ্যসভার অধিবেশন শুরুর পর রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম বেঙ্কাইয়া নাইডু শান্তনু সেনকে পুরো বাদল অধিবেশনের জন্য সাসপেন্ড করেন। অসংসদীয় কাজের জন্য শান্তনু সেনকে সাসপেন্ড করা হল বলে জানান তিনি।

এর ফলে শান্তনু সেন বাদল অধিবেশনের বাকি দিনগুলোয় সংসদে উপস্থিত থাকতে পারবেননা। আগামী ১৩ অগাস্ট পর্যন্ত চলবে অধিবেশন। এই দিনগুলোয় রাজ্যসভায় শান্তনু সেনকে দেখতে পাওয়া যাবেনা।

শান্তনু সেনকে সাসপেন্ড করার পর তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন পাল্টা দাবি করেন, যদি শান্তনু সেনের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা হয় তাহলে শান্তনু সেনের দিকে তেড়ে আসা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী কেন শাস্তি পেলেন না? এই প্রশ্নে সোচ্চার হয় তৃণমূল।

শান্তনু সেনকে সাসপেন্ড করার পর তৃণমূল সহ অন্য বিরোধী দলের সাংসদদের প্রবল হট্টগোলে রাজ্যসভার অধিবেশন দিনের জন্য মুলতুবি হয়ে যায়। পেগাসাস বিতর্ককে কেন্দ্র করে রাজ্যসভা ও লোকসভায় বিরোধীরা কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছে।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.