National

দাড়ি থাকলে বিয়ে হবেনা, বরকে ফেরত পাঠানো হবে, জানিয়ে দিল সংগঠন

কনে অপেক্ষায় থাকলেও বিয়ে করা আর হবেনা বরের। কারণ তাঁর দাড়ি রয়েছে। জানিয়ে দিল একটি সংগঠন। দাড়ি থাকলে বরকে দরজা থেকেই বিদায় নিতে হবে।

বরের কোনও খারাপ স্বভাবের কথা বা এমন কোনও গোপন কথা যা জানার পর বিয়ে দেওয়া যায়না, এমন হলে শেষ মুহুর্তেও বিয়ে ভেঙে দেওয়া যায়। তার একটা যুক্তি অবশ্যই রয়েছে।

কিন্তু অনেকেই এটা বুঝে উঠতে পারছেন না বরের দাড়িতে কি আপত্তি? দাড়ি আছে বলে বিয়ে করতে পারবেন না তিনি! কিন্তু সেই ফতোয়াই জারি করেছে একটি সংগঠন।

‘শ্রী ক্ষত্রিয় কুমাওয়াত সামোহিক বিবাহ সমিতি’ নামে একটি সংগঠনের তরফ থেকে এই বিয়ের আয়োজন হয়েছে। একজনের বিয়ে নয়। গণ বিবাহের আয়োজন হয়েছে।

সেখানে উদ্যোক্তা সংগঠন আয়োজনে ত্রুটি রাখছে না। তবে তারা সাফ জানিয়ে দিয়েছে যদি তারা দেখে কোনও বর বিয়ে করতে দাড়ি নিয়ে হাজির হয়েছেন, তাঁকে বিয়েতে বসতে দেওয়া হবেনা। বরং দরজা থেকেই ফেরত পাঠানো হবে। কেবলমাত্র দাড়ি সাফ করে আসা বরকেই বিয়েতে বসানো হবে।


এই সিদ্ধান্ত সংগঠনের বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়েছে বলেও জানায় তারা। সংগঠনের তরফে জানানো হয়েছে দাড়ি কেটে বিয়ে করতে আসার মধ্যে একটি ভারতীয় সংস্কৃতির ছাপ আছে।

কিন্তু এখন অনেকে পাশ্চাত্য ভাবধারা মেনে দাড়ি রাখছেন। তা নিয়েই বিয়েতে বসছেন। যা দেখতে খারাপ লাগে। তাই তাদের সংগঠন এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

প্রসঙ্গত রাজস্থানের জয়পুরে এই বিয়ের আয়োজন হচ্ছে। আগামী ৩০ এপ্রিল সাতপাকে বাঁধা পড়বেন ৯ জোড়া তরুণ তরুণী। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button