National

গিলে নিয়েছিলেন ৬৩টা চামচ, কেন তাও জানালেন এক ব্যক্তি

৬৩টা চামচ গিলে নিয়েছিলেন তিনি। তবে তার পিছনে একটা কারণ ছিল। তাও জানিয়েছেন তিনি। এদিকে ৬৩টি চামচ পেটে যাওয়ার পর যা হওয়ার তাই হয়েছে।

পেটে অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করেন তাঁর ভাইপো। চিকিৎসকেরা এক্সরে করে জানতে পারেন তাঁর পেটের মধ্যে কিছু ধাতব বস্তু রয়েছে। সেগুলি আটকে রয়েছে পাকস্থলী এবং বৃহদান্ত্রের মধ্যে। তবে সেগুলো ঠিক কি তা চিকিৎসকেরা নিশ্চিত হতে পারেননি। নিশ্চিত করেন রোগী নিজেই।

তিনিই জানান তাঁর পেটে যে ধাতব বস্তুগুলি দেখা যাচ্ছে সেগুলি চামচ। অনেকগুলি চামচ তিনি গিলে নিয়েছেন বলেও জানান রোগী।

কটা না বলতে পারলেও তিনি এটা দাবি করেন যে ওই সব চামচ তিনি স্বদিচ্ছায় গিলে নেননি। তাঁকে গিলতে বাধ্য করা হয়েছিল। তিনি যে নেশামুক্তি কেন্দ্রে ভর্তি ছিলেন সেখানেই তাঁকে বাধ্য করা হত চামচ গিলে নিতে। ওই ব্যক্তিকে যে ১ বছর আগে একটি নেশামুক্তি কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছিল তা স্বীকার করেন তাঁর ভাইপোও।

এদিকে চামচের খোঁচায় পেটে যন্ত্রণা নিয়ে আইসিইউতে ভর্তি থাকা ওই ব্যক্তির অপারেশন করা হয়। ২ ঘণ্টার অপারেশনের শেষে পেট থেকে বেরিয়ে আসে এক এক করে ৬৩টি চামচ। তবে গোটা চামচ নয়।

চামচগুলি যখন গেলা হয়েছিল তখন সেগুলির মাথা ভেঙে বাদ দেওয়া হয়েছিল। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের মুজফ্ফরনগর জেলায়। ওই ব্যক্তি নেশামুক্তি কেন্দ্রের বিরুদ্ধে চামচ গেলানোর দাবি করলেও এখনও কোনও পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেননি। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button